চাল পাচারকারীদের তালিকা নিয়ে দুদকে গেল র‍্যাব

ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫

চাল পাচারকারীদের তালিকা নিয়ে দুদকে গেল র‍্যাব

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

চাল পাচারকারীদের তালিকা নিয়ে দুদকে গেল র‍্যাব

২১৫ টন ওএমএসের চাল পাচারকালে আটকের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) চিঠি দিয়েছে র‍্যাব।

বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে দুদক চেয়ারম্যানের সাথে দেখা করে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের অনুরোধ করা হয়।

র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওএমএসের ২১৫ টন চাল পাচারে ২৩ জন জড়িত বলে নিশ্চিত হয়েছি। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার রাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। আর আজকে দুদককেও এ ঘটনার জড়িতদের বিষয়ে লিখিত দিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘দুদক অপরাধীদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করে এবং তাদের জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পত্তি আছে কিনা, তা দেখার জন্য দুদকের চেয়ারম্যানের কাছে অনুরোধ করেছি।’

তিনি বলেন, ‘পাচারের ঘটনার সাথে জড়িত ২৩ জনের নামে মামলা দিয়েছি। এর মধ্যে খাদ্য গুদাম কেন্দ্রের ১০ জন, বাকিরা ব্যবসায়ী ও ডিলার।’

এর আগে গত শনিবার রাত থেকে রোববার পর্যন্ত তেজগাঁও ও মোহাম্মদপুরে র‍্যাবের অভিযানে ২১৫ টন চাল ও আটা জব্দ করা হয়। এরপরই উঠে আসে পাচারকারীদের নাম।

যাদের নামে মামলা দেওয়া হয়েছে ও দুদকে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন- তেজগাঁও সিএসডির চেকপোস্ট ইনচার্জ সুমন, প্রধান দারোয়ান হারেজ, দারোয়ান বাবুল, স্টক শাখার ইনচার্জ শুকুর আলী হালদার, গেট শাখার ইনচার্জ ইউনুছ আলী মণ্ডল, ডিও শাখার ইনচার্জ কাজী মাহমুদ, শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা আলমগীর সৈকত, সভাপতি দুদু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আলমগীর, ঢাকার কদমতলীর মো. নজরুল ইসলাম ও পোস্তগোলার মো. জাকির হোসেন।

এছাড়াও চোরাই চাল বেচাকেনায় জড়িত মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটের জামি রাইস এজেন্সির মো. ইকবাল হোসেন, ছালেক এজেন্সির মো. সালাউদ্দিন, এশিয়ান ট্রেডার্সের মো. মিসকাতুর রহমান, বন্ধু রাইস এজেন্সির মো. নজরুল ইসলাম, রাহমানিয়া রাইস এজেন্সির মো. বিল্লাল হোসেন, কর্ণফুলী রাইস এজেন্সির মো. গোলাম কিবরিয়া, সুগন্ধা ট্রেডিংয়ের মো. গোলাম মোস্তফা, মহানগর এন্টারপ্রাইজের মো. তৈয়বুর রহমান, এপি সুগন্ধার হাজী মো. হান্নান, জননী এন্টারপ্রাইজের মো. শাহ আলম ও সূর্য এন্টারপ্রাইজের মো. কবির হোসেনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

টিএটি/