মা ও তিন বন্ধুকে নিয়ে যেভাবে বাবাকে হত্যা করল ছেলে

ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৫

মা ও তিন বন্ধুকে নিয়ে যেভাবে বাবাকে হত্যা করল ছেলে

প্রীতম সাহা সুদীপ ২:৫৭ অপরাহ্ণ, জুন ২১, ২০১৮

print
মা ও তিন বন্ধুকে নিয়ে যেভাবে বাবাকে হত্যা করল ছেলে

কমলাপুরের টিটি পাড়ায় রাস্তায় শরবত বিক্রি করতেন রফিকুল ইসলাম (৪৮)। মাদকাসক্ত ছিলেন তিনি, যে কারণে অভাব-অনটনের সংসারে প্রায় প্রতিদিনই ঝগড়া লেগে থাকতো। বুধবার রাতেও এমন ঝগড়া চলছিল, এর মধ্যেই রফিকুলকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে তার স্ত্রী-সন্তানরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মুগদার বাসা থেকে নিহত রফিকুলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। ওই ঘটনায় রফিকুলের স্ত্রী নাছিম আক্তার বিথি (৪০), ছেলে রাব্বী (১৯) ও তার তিন বন্ধুকে আটক করা হয়েছে।

মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এনামুল হক পরিবর্তন ডটকমকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সাংসারিক অভাব-অনটন নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মাদকাসক্ত রফিকুলের প্রায় ঝগড়া হতো। ঝগড়ার এক পর্যায়ে গতরাতে স্ত্রী বিথি, ছেলে রাব্বী ও তার তিনবন্ধু রফিকুলকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। তাদের আটক করা হয়েছে।

নিহত রফিকুল বাগেরহাট সদর উপজেলার বেসরগাতি গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে। তিনি স্ত্রী সন্তানসহ মুগদার উত্তর মানিকনগরের জয়নাল মিয়ার টিনসেড বাসায় ভাড়া থাকতেন।

মুগদা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রহিদুল ইসলাম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, রফিকুল শরবত বিক্রি করতেন। তিনি স্ত্রী ও দুই ছেলে, এক মেয়েকে নিয়ে মুগদার ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। বিভিন্ন কারণে দীর্ঘদিন ধরেই তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল।

তিনি বলেন, গত বুধবার দিবাগত রাতে বড় ছেলে রাব্বী তার তিন বন্ধুকে বাসায় ডেকে আনে। এরপর স্ত্রী বিথি, রাব্বী আর তার বন্ধুরা মিলে রফিকুলকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে ঘরে তালা দিয়ে তারা বাইরে বেরিয়ে যায়।

এসআই রহিদুল আরও জানান, ঘটনাটি প্রতিবেশীরা টের পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে মধ্যরাতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রফিকুলের লাশ উদ্ধার করে। বিথি, রাব্বী ও তার তিন বন্ধুকে আটক করা হয়।

রফিকুলের খালাতো ভাই মোস্তাক ফকির বাদল পরিবর্তন ডটকমকে জানান, রফিকুল শরবত বিক্রির আগে কসাইয়ের কাজ করতেন। তার বড় ছেলে রাব্বী দুই তিন বছর আগে মুগদায় ঘটে যাওয়া একটি হত্যা মামলার আসামি।

তিনি আরও জানান, তাদের পরিবারে সব সময় ঝগড়া লেগে থাকতো। গত রাতে রফিকুলের স্ত্রী ছেলে রাব্বীসহ তার তিন বন্ধু রফিকুলকে হত্যা করে। ঘটনার পর থেকে রফিকুলের আরেক সন্তান জিদনীকে (১৩) খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

পিএসএস/এমআর

 
.



আলোচিত সংবাদ