প্রোগ্রামিংয়ের বেসিক জানতে দীপুর ‘সি প্রোগ্রামিং: এ টু জেড’

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

প্রোগ্রামিংয়ের বেসিক জানতে দীপুর ‘সি প্রোগ্রামিং: এ টু জেড’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:২৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৭

প্রোগ্রামিংয়ের বেসিক জানতে দীপুর ‘সি প্রোগ্রামিং: এ টু জেড’

মানব জীবনে দ্রুতগতি সর্বপ্রথম এনে দিয়েছিল বাষ্পীয় ইঞ্জিন। কালের আবর্তে সেই বাষ্পীয় ইঞ্জিন আর এখন নেই, কিন্তু তার ছাপ আজ অবধি রয়ে গেছে। বর্তমান পৃথিবী ক্রমশ প্রযুক্তির দিকে ছুটছে। এই ছুটে চলা অবিরত। প্রযুক্তির আধুনিকায়ন সবচেয়ে বেশি হয়েছে বিশ শতকে। এই বিশ শতকেরই সবচেয়ে আশ্চর্য আবিষ্কার ছিল কম্পিউটার। নিমিষেই যা লক্ষ কোটি হিসেব কষে দিতে পারে। বছরের পর বছর তা আরও উন্নততর হয়েছে এবং হচ্ছে। নানারকম অ্যাপ্লিকেশন এবং সফটওয়্যার জীবনকে সহজ করেছে। এখন মানুষ স্বপ্ন দেখে চাঁদ কিংবা মঙ্গলে বসতি করার। এর সবকিছুই সম্ভবপর হয়েছে কম্পিউটার এর কল্যাণেই। কিন্তু এই কম্পিউটার এর সাথে মানুষ যোগাযোগ কিভাবে করে? আমাদের মতো কম্পিউটার এর তো মুখ কিংবা কান নেই। তাহলে? কম্পিউটার কি মানব ভাষা বুঝতে পারে? এর কি নিজস্ব কোন ভাষা আছে? কম্পিউটার আমাদের ভাষা বুঝতে পারে না। এর কোন বুদ্ধিমত্তাও নেই। কিন্তু কম্পিউটার এর নিজস্ব একটি ভাষা রয়েছে। সেই ভাষার মাধ্যমেই মানুষ কম্পিউটারে এর সাথে যোগাযোগ করে। এই ভাষাটাই হচ্ছে প্রোগ্রামিং ভাষা।

কম্পিউটার এর মতোই আরও অনেক হার্ডওয়্যার মানুষকে গতিশীল করেছে, জীবনকে সহজ করে দিয়েছে। কিন্তু এই হার্ডওয়্যারও চলে নানা ধরণের অ্যাপ্লিকেশন বা সফটওয়্যার এর মাধ্যমে। কম্পিউটারও একটি হার্ডওয়্যার। কিন্তু একে চালানোর জন্য প্রয়োজন উপযোগী সফটওয়্যার। সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার হচ্ছে একে অপরের পরিপূরক। আর এই সফটওয়্যারগুলো তৈরিও করা হয় কম্পিউটার ব্যবহার করে কম্পিউটার এর ভাষায়, অর্থাৎ প্রোগ্রাম করে। তারপর সেগুলো হার্ডওয়্যারে ইন্সটল করা হয়।

বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় স্কুল এবং কলেজ পর্যায়ে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক। সেই সূত্রেই প্রত্যেকে ছাত্রছাত্রীকে সি প্রোগ্রাম শিখতে হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে, বিশেষ করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতিদিন কম্পিউটার সায়েন্স পড়ুয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় প্রতিটা বিভাগেই সি প্রোগ্রাম পড়ানো হয়। আর কম্পিউটার এর জগতকে পুরোপুরি জানতে এবং বুঝতে হলে প্রোগ্রামিং জানা আবশ্যক। অন্যথায় একে পুরোপুরি জানা যাবে না। কিন্তু সি প্রোগ্রাম প্রথম দেখার পরই একটি প্রশ্ন চলে আসে, এটা আবার কি?

প্রোগ্রামিং ভাষা নিয়ে অনেক যুদ্ধ করতে হয় প্রাথমিক অবস্থায়। এই যুদ্ধের পথটা কিছুটা মসৃণ করে দিতেই এই বইয়ের ভাবনা (সি প্রোগ্রামিং: এ টু জেড- এ কমপ্লিট টিউটোরিয়াল) এবং ভাবনাটাকে বাস্তবে রূপদান করার একটি প্রয়াস। সি ভাষা প্রোগ্রামিং এর জগতে প্রবেশ করার একটি সোপান মাত্র। আরও অনেক রকম প্রোগ্রামিং ভাষা আছে। সেগুলো সর্বপ্রথম তৈরিও করা হয় এই সি ভাষা দিয়েই। তাই নির্দ্বিধায় বলা যায়, বর্তমান বিশ্বের প্রায় সবকিছুই প্রোগ্রামিং এর কুক্ষিগত এবং সি ভাষা প্রতিটি শিক্ষার্থীকে জানতেই হয় বা হবে।

আর সি প্রোগ্রামিং জানতে বাজারে রয়েছে তরুন লেখক রুহুল আমিন দীপুর ‘সি প্রোগ্রামিং: এ টু জেড’

বইটি পাওয়া যাবে আদর্শ স্টলে (স্টল নাম্বার ৪৯৬-৪৯৭)। মূল্য ২০০ টাকা। বইমেলায় ২৫% ছাড়ে পাওয়া যাবে ১৫০ টাকায়। এছাড়াও রকমারি.কম সহ নীলক্ষেতের বইয়ের দোকানগুলোতেও পাওয়া যাচ্ছে বইটি।

এসবিআই/

 

গ্রন্থ আলোচনা: আরও পড়ুন

আরও