মীর লিয়াকত আলীর ‌‌‌‌‌গল্প সমগ্র-এর মোড়ক উম্মোচন

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

মীর লিয়াকত আলীর ‌‌‌‌‌গল্প সমগ্র-এর মোড়ক উম্মোচন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯

মীর লিয়াকত আলীর ‌‌‌‌‌গল্প সমগ্র-এর মোড়ক উম্মোচন

কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক মীর লিয়াকত আলীর গ্রল্প সমগ্র নামক বইটির মোড়ক উম্মোচিত হলো অমর একুশে গ্রন্থমেলায়। শনিবার সন্ধ্যায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মেলার মোড়ক উম্মোচন মঞ্চে বইটির মোড়ক উম্মোচন করা হয়।
এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির পরিচালক ও অমর একুশে গ্রন্থমেলার সদস্য সচিব জালালউদ্দিন আহমেদ, এশিয়া প্যাসেফিক পাবলিশার্স এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ও অন্যদিন গ্রুপের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম, বইটির লেখক মীর লিয়াকত আলী, বইটির প্রকাশক আবু হাশেম, প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান অর্জন প্রকাশন-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ আলী প্রমুখ।

শিক্ষা্ সাহিত্য সংস্কৃতি সাংবাদিকতায় চার যুগেরও বেশি সময় একটানা নিজেকে ধরে রেখেছেন সব্যসাচী মীর লিয়াকত আলী। বিভিন্ন সময়ে তার লেখা গল্পগুলোকে এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এক মলাটে প্রকাশ করার উদ্যোগ নেয় অর্জন প্রকাশন। বইটিতে রয়েছে মোট ৭৩টি গল্প।

মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে নিজের অভিব্যক্তি জানাতে গিয়ে লেখক মীর লিয়াকত আলী বলেন, সমকালীন অবস্থান, নৈতিক অবক্ষয়, সামাজিক চরিত্র-চিত্রই আমার গল্পগুলোর মূল উপজীব্য। আশা করি পাঠকরা আমার বইটি ভালোভাবে গ্রহণ করবেন।

গল্প সমগ্র বইটি প্রকাশে সহায়তা করার জন্য অকৃত্রিম বন্ধু জালালউদ্দিন আহমেদ এবং অর্জন প্রকাশনের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন মীর লিয়াকত আলী।
মাজহারুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, গল্প সমগ্র বইটি প্রকাশিত হওয়ায় লেখক মীর লিয়াকত আলীকে অভিনন্দন জানাই। গতকাল (শুক্রবার) প্রকাশক আবু হাশেম বইটি আমার হাতে দিয়েছিল। আমি বেশ কয়েকটি গল্প পড়ে দেখেছি। এক কথায় গল্পগুলো অসাধারণ। আমাদের চারপাশের মানুষের কথা, আমাদের সমাজ বাস্তবতা, মুক্তিযুদ্ধের কথা, জীবনের কথা, আমাদের প্রকৃতির কথা সবকিছুই তার গল্পে উঠে এসেছে। অত্যন্ত সহজ সরল ও সাবলীল তার ভাষা এবং মেদহীন ভাষা, যেটাকে বলা হয়ে থাকে অপ্রয়োজনীয় শব্দ ব্যবহার না করা। খুব ভালো লেগেছে। আমি তার সাফল্য কামনা করছি।

প্রকাশনার প্রথম বছরেই এমন একটি বই প্রকাশ করার জন্য অর্জন প্রকাশনের প্রশংসা করে তিনি বলেন, আপনারা জানেন কিনা, এ বছরই কিন্তু অর্জন প্রকাশনের যাত্রা শুরু। যখন সে আমাকে বইটি দিল, বিশাল আকারের-বিশাল আয়তনের বই। একটি বই করতে কিন্তু অনেক খরচ। তাই আমি তাকে বললাম-এত বড় সাহস তুমি কীভাবে পেলে? দেখলাম তার প্রচণ্ড রকম সাহস ও উদ্দীপনা আছে।

জালালউদ্দিন আহমেদ তার বক্তব্যে লেখককে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি বইটি প্রকাশ করায় অর্জন প্রকাশনকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এবারই প্রথম অর্জন প্রকাশন মেলায় স্টল পেয়েছে। প্রথমবার মেলায় অংশ নিয়েই এমন বড় ভলিউমের একটি বই প্রকাশ করা আসলেই সাহসের বিষয়। আমি অর্জন প্রকাশনের সাফল্য কামনা করি।

বন্ধুবর মীর লিয়াকত আলীর লেখনীর প্রশংসা করে তিনি বলেন, এই লেখকের সবগুলো গল্পই সুখপাঠ্য। উপস্থাপনার ক্ষেত্রে সহজ-সরল ভাষার ব্যবহার, প্রাঞ্জল বর্ণনা তার লেখনীকে পাঠক মহলে নিঃসন্দেহে বিশেষ স্থান করে দেবে। তার গল্পের বিষয়বস্তুও পাঠক মনকে আকৃষ্ট করার মতো। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়কাল থেকে শুরু করে সমকালীন সময়ের মানুষ, পরিবেশ-পরিস্থিতি, সামাজিক প্রেক্ষাপট, মানব হৃদয়ের আবেগ-অনুভূতি সবই রয়েছে মীর লিয়াকত আলীর গল্পগুলোতে। আমি তার সাফল্য কামনা করি।

মীর লিয়াকত আলীর গল্প সমগ্র বইটি অমর একুশে গ্রন্থমেলায় পাওয়া যাচ্ছে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অর্জন প্রকাশনের স্টলে। স্টল নাম্বার-৫৫৭।

এআরই