‘দাবাং’ এর জন্য আমার ক্যারিয়ার নষ্ট হয়ে গেছে’

ঢাকা, বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮ | ৮ কার্তিক ১৪২৫

‘দাবাং’ এর জন্য আমার ক্যারিয়ার নষ্ট হয়ে গেছে’

পরিবর্তন ডেস্ক: ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০১৮

‘দাবাং’ এর জন্য আমার ক্যারিয়ার নষ্ট হয়ে গেছে’

সালমান খানের সঙ্গে কাজ করতে কে না চায়। বলিউডে অসংখ্য ছেলে মেয়ে অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে পাড়ি দেয়। সঙ্গে এই আশাও রাখে যে দাবাং খানের ছবিতে এক সেকেন্ডের রোল হলেও চলবে। এ সংক্রান্ত একটি খবর প্রকাশ করেছে ভারতের কলকাতা২৪ পত্রিকা।

সেই সালমানের ছবিতে সুযোগ পেয়েও দুঃখপ্রকাশ করছেন এক অভিনেত্রী। সেই নায়িকার কথায়, সালমানের ‘দাবাং’ ছবিতে কাজ করা তার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল। তার উচিতই হয়নি সেই চরিত্রতে অভিনয় করার।

২০০৯ সালে অনুরাগ কাশ্যপের ‘দেব ডি’ ছবি দিয়ে বলিউডে ধামাকেদার পারফরমেন্স দিয়েছিলেন মাহি গিল। ফিল্মফেয়ার ক্রিটিকস অ্যাওয়ার্ডের সেরা অভিনেত্রীর পুরষ্কারও পেয়েছিলেন। অভিনয় দক্ষতায় নিজের জাত চিনিয়েছিলেন। ২০০৯-এ বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি পেল আরেক তাবড় অভিনেত্রী।

এর আগে অবশ্য বলিউডে দুটি ছবি করেছিলেন। তবে তেমন জনপ্রিয়তা পাননি যতটা ‘দেব ডি’তে অভিনয় করে পেয়েছিলেন। তার অভিনয়ে মুগ্ধ হয়ে একের পর এক প্রশংসার পুল বেঁধেছিল বিভিন্ন পরিচালক-প্রযোজকরা। ভালো চিত্রনাট্যও আসতে শুরু করে তার কাছে। সেই সমস্ত চিত্রনাট্যের মধ্যে ‘দাবাং’ এর একটি ছোট চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ পান তিনি।

আবেগের বসে বাকি সমস্ত ছবির অফার দূরে সরিয়ে ‘দাবাং’ এর নির্মলার চরিত্রে অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নেন। ভেবেছিলেন সালমান খানের ছবি। বড় ব্যানারের প্রজেক্ট, তাকে দর্শক আরও বেশি করে চিনবে। কিন্তু ঘটে গেল হিতে বিপরীত। তার সেই ছোট্ট চরিত্রটির তেমন গুরুত্বই ছিল না ছবিতে। বরং মাহিকে কেউ খেয়াল করল না। কেবল দর্শকদের কাছ থেকে অসফলতা নয়, তার ক্যারিয়ারও ধীরে ধীরে নীচের দিকে পড়তে শুরু করল।

ছবিতে আরবাজ খানের বিপরীতে অভিনয় করে তিনি কত বড় ভুল করেছেন সেটা স্বীকার করেছেন সম্প্রতি। ‘দেব ডি’র পর আমি খুব প্রশংসিত হয়েছিলাম। পুরষ্কারও পেয়েছিলাম। অনেক পরিচালক-প্রযোজকরা আমায় তাদের ছবিতে চাইছিলেন। কিন্তু আমি তখন ‘দাবাং’ সাইন করি। আর সঙ্গে সঙ্গে সবকিছু দুঃস্বপ্নের মতো হয়ে গেল। প্রযোজকরা আমায় ছোটখাট রোল অফার করতে লাগল। আমি সেই সময় কতটা ভেঙে পড়েছিলাম বলে বোঝাতে পারব না। আমার সঙ্গে কী হচ্ছিল বুঝতেই পারছিলাম না।’

তিনি আরও জানান, ‘আমার ক্যারিয়ারের পিক টাইম তখন। আর সেই সময় ক্যারিয়ারটা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তবে পরে আমার কাছে ‘সাহেব বিবি অর গ্যাংগস্টার’র ফ্র্যাঞ্চাইজিটা আসে। তিগমাংশু ধুলিয়াকে আমি কীভাবে ধন্যবাদ জানাব জানি না। যখন কেউ আমায় মুখ্য ভূমিকায় কাস্ট করতে রাজি ছিল না। তখন তিগমাংশু আমার ওপর ভরসা করে। ছবিটা করার সময় আমরা কেউ ভাবিনি যে এত হিট করবে।’

এই ফ্র্যাঞ্চাইজির তৃতীয় ছবি ‘সাহেব বিবি অর গ্যাংগস্টার থ্রি’ ২৭ জুলাই মুক্তি পেতে চলেছে। মাহি এবং জিমি শেরগিল ছাড়াও মুখ্য ভূমিকায় রয়েছেন সঞ্জয় দত্ত এবং চিত্রাঙ্গদা সিং।

জিজাক/