অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন মিন্নি

ঢাকা, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন মিন্নি

বরগুনা প্রতিনিধি ৫:২২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৯

অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন মিন্নি

বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতার তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার বিকাল ৪টা ৩৯ মিনিটে তিনি বরগুনা জেলা কারাগার থেকে বের হয়ে আসেন।

এর আগে বিকাল ৪টায় বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক এম জাহিদ হাসান স্বাক্ষরিত মিন্নির রিলিজ অর্ডার বরগুনা জেলা কারাগারে পৌঁছায়।

কারাগার থেকে মিন্নি বের হওয়ায় সময় উপস্থিত ছিলেন মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর ও তার আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম।

কারাগার থেকে বের হওয়ার পর মিন্নিকে অ্যাম্বুলেন্সযোগে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

মিন্নি কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে কারাগার প্রাঙ্গণে উপস্থিত হয় উৎসুক জনতা।

কারাগার প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সদস্যরাও।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিন্নির আইনজীবী ও বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী আসলাম।

মিন্নিকে জামিন দিয়ে গত ২৯ সেপ্টেম্বর রায় দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ১ সেপ্টেম্বর তার জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করেছিল রাষ্ট্রপক্ষ। রাষ্ট্রপক্ষের এই আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে গতকাল সোমবার চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ‘নো অর্ডার’ দিয়েছেন। চেম্বার বিচারপতির এই আদেশের ফলে মিন্নিকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রয়েছে বলে জানান আয়শার আইনজীবী জেড আই খান পান্না। তিনি গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, এখন মিন্নির কারামুক্তিতে আইনগত কোনো বাধা নেই।

২৯ আগস্ট মিন্নির জামিন মঞ্জুর করে রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে বলা হয়, মিন্নি তার বাবার জিম্মায় থাকবেন। গণমাধ্যমে কোনো বক্তব্য দিতে পারবেন না।

গত ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে তার স্ত্রী মিন্নির সামনে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে দুর্বৃত্তরা। এরপর তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পর ওই দিন বিকেলে মারা যান রিফাত শরীফ।

পরদিন ২৭ জুন নিহত রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ বাদী হয়ে বরগুনা থানায় ১২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তাতে প্রধান সাক্ষী করা হয় রিফাত শরীফের স্ত্রী মিন্নিকে।

কিন্তু মিন্নির শ্বশুর গত ১৩ জুলাই এই হত্যাকাণ্ডে মিন্নি জড়িত—এমন দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করার পর মামলার তদন্ত নাটকীয় মোড় নেয়।

গত ১৬ জুলাই মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদের নামে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গ্রেফতার করা হয়। এরপর থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

এই মামলার এজাহারভুক্ত প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন। মামলার দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজীকে পুলিশ ৩ জুলাই গ্রেফতার দেখায়।

পুলিশ জানায়, এই মামলায় এ পর্যন্ত ১৫ জন গ্রেফতার হয়েছেন। এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ৮ জন এবং সন্দেহভাজন ৭ জন। তারা সবাই আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গ্রেফতারদের মধ্যে মিন্নি তার জবানবন্দি প্রত্যাহারের জন্য যে আবেদন করেছেন, তা শুনানির অপেক্ষায় আছে।

আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী মিন্নি সিদ্দিকাসহ ২৪ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ। গত রোববার বিকেলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনা থানার পরিদর্শক হুমায়ুন কবির অভিযোগপত্রটি জমা দেন।

ওএস/এসবি

আরও পড়ুন...
আজই জামিনে মুক্তি পাচ্ছেন মিন্নি

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও