মিন্নির জামিন হয়নি

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

মিন্নির জামিন হয়নি

বরগুনা প্রতিনিধি ২:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০১৯

মিন্নির জামিন হয়নি

বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় কারাবন্দি তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার দুপুরে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সিরাজুল ইসলাম গাজী এ আদেশ দেন।

মিন্নিকে গ্রেফতারের পর গত ১৭ জুলাই আদালতে হাজির করার দিন কোনো আইনজীবী তার পক্ষে না দাঁড়ালেও এদিন ১৩ আইনজীবী তার পক্ষে জামিন শুনানি করেন। তবে মিন্নিকে আদালতে হাজির করা হয়নি।

আদালতে মিন্নির পক্ষে জামিন আবেদন করেন বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল বারী আসলাম।

শুনানিতে তিনি বলেন, ‘মিন্নি শারীরিকভাবে অসুস্থ। তার কাছ থেকে জোর করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেয়া হয়েছে।’

মাহাবুবুল বারীর সঙ্গে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের দু’জন এবং বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) সাতজনসহ মোট ১৩ আইনজীবী অংশ নেন।

আদালতে আসামিপক্ষের আইনজীবীর বক্তব্যের বিরোধিতা করে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি সঞ্জিত দাস মিন্নিকে কারাবন্দি রাখার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন।

শুনানি শেষে মাহাবুবুল বারী সাংবাদিকদের বলেন, ‘রিফাত হত্যার ঘটনায় তার স্ত্রী মিন্নি জড়িত বলে এ মামলায় গ্রেফতার আসামিরা জবানবন্দি দিয়েছেন। এ কারণে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন।’

অবশ্য একই আদালতে গত ১৯ জুলাই ১৬৪ ধারায় ‘স্বীকারোক্তিমূলক’ জবানবন্দি দেন মিন্নি। পরে মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর দাবি করেন, ‘নির্যাতন ও জোরজবরদস্তি করে’ তার মেয়েকে ওই জবানবন্দি দিতে বাধ্য করা হয়েছে।

গত ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সে সময় স্বামীকে বাঁচাতে মিন্নির চেষ্টার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে আলোচনার সৃষ্টি হয়।

পরদিন রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ ১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন, তাতে মিন্নিকেই প্রধান সাক্ষী করা হয়।

সম্প্রতি মিন্নির শ্বশুর তার ছেলের হত্যাকাণ্ডে পত্রবধূর জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করলে আলোচনা নতুন দিকে মোড় নেয়।

তবে শ্বশুরের অভিযোগ অস্বীকার করে মিন্নি বলেন, ‘শ্বশুরের অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট। তিনি ষড়যন্ত্রকারীদের প্ররোচনায় পড়ে এমন কথা বলছেন।’

এরপর গত ১৬ জুলাই মিন্নিকে এক আসামি সনাক্তের কথা বলে বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডেকে নেয়া হয়। কিন্তু, দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতে তাকে রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখায়।

পরদিন আদালতে হাজির করা হলে বিচারক মিন্নিকে ৫ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। ওইদিনই আদালতে সুযোগ পেয়ে মিন্নি নিজেকে নির্দোষ দাবি করে স্বামী রিফাত শরীফের হত্যাকারীদের বিচার চান।

এরপর দু’দিনেই রিমান্ড শেষ করে ১৯ জুলাই বিকেলে মিন্নিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ জানায়, রিফাত হত্যায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মিন্নি।

এ মামলায় এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত ৬ জন ও মিন্নিসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর হত্যা মামলার মূল আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

ওএস/আইএম

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও