স্বামী হত্যায় জড়িতের কথা স্বীকার মিন্নির: এসপি মারুফ

ঢাকা, ২০ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

স্বামী হত্যায় জড়িতের কথা স্বীকার মিন্নির: এসপি মারুফ

বরিশাল ব্যুরো ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০১৯

স্বামী হত্যায় জড়িতের কথা স্বীকার মিন্নির: এসপি মারুফ

বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন দাবি করেছেন, স্বামী রিফাত শরীফকে হত্যার পরিকল্পনায় নিজে জড়িত ছিলেন বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি, যিনি এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের মামলায় প্রধান সাক্ষী।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ দাবি করেন।

মূলত রিফাত হত্যা মামলার তৃতীয় আসামি রিশান ফরাজীকে গ্রেফতারের পরে, তাকে হাজির করে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. শাহজাহান হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে কোথা থেকে রিশানকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তদন্তের স্বার্থে তা জানায়নি পুলিশ।

রিশান বরগুনা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের ধানসিঁড়ি রোডের দুলাল ফরাজীর ছেলে এবং এই মামলার দ্বিতীয় আসামি রিফাত ফরাজীর ছোট ভাই।

সংবাদ সম্মেলনে এসপি মারুফ হোসেন বলেন, ‘মঙ্গলবার দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ ও বুধবার রিমান্ড মঞ্জুরের পর থেকেই পুলিশ মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। ইতোমধ্যে তিনি রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি এ হত্যার পরিকল্পনার সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন।’

গত ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরে এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হলে, তাতে দেখা যায়- হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত স্বামীকে বাঁচাতে পারেননি মিন্নি।

এ ঘটনায় পরে রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ হত্যা মামলা দায়ের করেন। এখন পর্যন্ত এ মামলায় রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ১৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

অবশ্য রিফাতের বাবা সম্প্রতি সংবাদ সম্মেলন করে মিন্নিকে গ্রেফতারের আবেদন জানানোর পর গত মঙ্গলবার রাতে তাকে পুলিশ বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে গ্রেফতার দেখায়। এরপর গতকাল বুধবার আদালতে তুলে তাকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়।

আদালতে অবশ্য মিন্নি দাবি করেন, রিফাতের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। তিনি তার স্বামী হত্যার বিচার চান।

যদিও সেদিন আদালতে তার পক্ষে বরগুনার কোনো আইনজীবী দাঁড়াতে রাজি হননি বলে পরে সাংবাদিকদের জানান মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।

আইএম

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও