অগ্নিদগ্ধ শাজেনূরকে ঢাকায় প্রেরণ

ঢাকা, ২২ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

অগ্নিদগ্ধ শাজেনূরকে ঢাকায় প্রেরণ

বরিশাল ব্যুরো ৫:১৮ অপরাহ্ণ, জুন ১৩, ২০১৯

অগ্নিদগ্ধ শাজেনূরকে ঢাকায় প্রেরণ

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় স্বামীর দেয়া আগুনে গুরুতর আহত শাজেনূর বেগমকে (৩০) উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল না হওয়ায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের চিকিৎসকের নির্দেশে তাকে নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন স্বজনরা।

এর আগে তাকে বেলা ১১টার দিকে তাকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন বলেন, শাজেনূরের অবস্থা শঙ্কটাপন্ন। তাই তাকে ঢাকায় পাঠানো খুবই জরুরি হয়ে পড়েছিল।

বার্ন ইউনিটের দায়িত্বরত ব্রাদার লিংকন দত্ত বলেন, আগুনে শাজেনূরের ৪৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। চিকিৎসকরা তার সর্বোচ্চ সেবা দিয়েছেন। চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে ঢাকায় নিয়েছেন স্বজনরা।

দগ্ধ শাজেনূরের চাচাতো ভাই ইব্রাহিম বলেন, বেলাল হোসেনের সঙ্গে প্রায় দেড় বছর আগে শাজেনূরের দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবনে কলহ লেগেই থাকতো। এই নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হয়। সালিশে বেলাল তার স্ত্রী শাজেনূর ও সৎ মেয়েকে আগুনে পুড়িয়ে মারার হুমকিও দিয়েছিলেন।

অগ্নিদগ্ধ শাজেনূর বেগম জানান, বেলাল হোসেন আমার বাবাকে মারধর করে এবং এরপর তাকে তালাক দেওয়ার কথা বললে সে ক্ষিপ্ত হয়ে পেট্রোল দিয়ে ঘরে আগুন দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মেয়ে কারিমা মারা যান এবং আর শাজেনূরের শরীর পুড়ে যায়। সৎ মেয়ে ও স্ত্রীকে আগুনে পোড়ানোর কয়েকঘণ্টা পর অভিযুক্ত বেলাল হোসেন (৩৫) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাথরঘাটা উপজেলার সদর পাথরঘাটা ইউনিয়নের পূর্ব হাতেমপুর গ্রামের খালের পাশে একটি আম গাছ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ইউনিয়নের রুহিতা গ্রামের বসতঘরে বেলাল হোসেন তার স্ত্রী ও সৎ মেয়ের পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে পুড়ে সৎ মেয়ে সখিনা আক্তারের (১০) মৃত্যু হয়।

জেএইচ/পিএসএস
আরও পড়ুন...
বরগুনায় সৎ মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও