‘ক্রাইম পেট্রল’দেখেই স্কুলছাত্র সালাউদ্দিনকে হত্যার ছক

ঢাকা, ২৪ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

‘ক্রাইম পেট্রল’দেখেই স্কুলছাত্র সালাউদ্দিনকে হত্যার ছক

পিরোজপুর প্রতিনিধি ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, জুন ০৫, ২০১৯

‘ক্রাইম পেট্রল’দেখেই স্কুলছাত্র সালাউদ্দিনকে হত্যার ছক

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার উমেদপুর গ্রামের ফল ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমানের ৫ সন্তানের মধ্যে সবার ছোট ছিল সালাউদ্দিন (১৩)। পাড়েরহাট রাজলক্ষ্মী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণিতে পড়ত সে। পড়াশুনার পাশাপাশি পাড়েরহাট বাজারে ফলের দোকানে বাবাকে সহযোগিতা করতো। কিন্তু এখন তার ঠিকানা অন্ধকার কবরে। সিনেমার কাহিনীর মতই অকালে কিশোর অপহরণকারীদের হাতে খুনের শিকার হয়ে পরপারে চলে যেতে হয়েছে তাকে।

এদিকে আদরের সন্তানকে হারিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন সিদ্দিকুর রহমান। আর কোনো দিন বাবাকে দোকানে সহযোগিতা করবে না সে। তার এভাবে চলে যাওয়াটা কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছেনা পরিবারের সদস্যরা। শোকে কাতর পাড়া প্রতিবেশীরাও। মঙ্গলবার (৪ জুন) মৃতের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন শেষে বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় শিশু সালাউদ্দিনের মরদেহ ।

সালাহউদ্দিনকে অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় তার বাবা সিদ্দিকুর রহমান বাদী হয়ে ইন্দুরকানি থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ৪ থেকে ৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এরমধ্যে এ হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী উমেদপুর গ্রামের হায়দার শেখের ছেলে মো. সোহানসহ (১৯) চর টগড়ার আব্দুর রব শেখের ছেলে মারুফ শেখ (১৫), মধ্য নামাজপুরের সোমেদ শেখের ছেলে মো. মাসুদ শেখ (১৪), উমেদপুরের মজিবরের ছেলে নাঈম (১৪), পাড়েরহাটের হাকিম হাওলাদারের ছেলে হাফিজুর (১৮), মোড়েলগঞ্জের তেতুল বাড়িয়ার আমজাদ মুন্সির ছেলে সাগর মুন্সী (১৮), পাঙ্গাসিয়ার জব্বার মোল্লার ছেলে বেল্লাল (১৪), পাঙ্গাশিয়া গ্রামের উত্তম সমদ্দারের ছেলে তন্ময় সমদ্দার (১৫) ও চর টগড়ার আশ্রাফের ছেলে বিকাশ এজেন্ট কবির শেখকে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ।

থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাতে শবে কদরের নামাজ পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয় সালাউদ্দিন। এরপর সে আর ঘরে ফিরেনি। পরের দিন রোববার সকালে একটি মোবাইল থেকে সালাউদ্দিনের পিতার কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে ফোন দেয় অপহরণকারীরা। এরপর পরিবারের লোকজন বিষয়টি থানা পুলিশকে জানায় পরিবার। শিশুর পিতা ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে রোববার রাতে উপজেলার টেংড়াখালী এলাকার আলীর খালের গোড়ায় টাকা নিয়ে গেলে যায়। সেখানে পুলিশের একটি দল ওঁৎ পেতে থাকে। এসময় মুক্তিপণের টাকা নিতে আসা অপহরণকারীদের একজন টেংড়াখালী গ্রামের আঃ রবের ছেলে মারুফ (৩০) কে আটক করে।

এরপরের দিন অর্থ্যাৎ নিখোঁজের দুদিন পর সোমবার দুপুর ১টার দিকে পুলিশ উমেদপুর খাল থেকে সালাউদ্দিনের ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার করে।

ভারতীয় টিভি চ্যানেল সনি৮ এ অপরাধ বিষয়ক অনুষ্ঠান ক্রাইম পেট্রল দেখেই শিশু সালাউদ্দিনকে অপহরণের পর হত্যা এবং পরিবারের কাছে চাঁদা দাবির ব্যাপারে অপহরণকারীরা আগ্রহী হয় বলে জানান পিরোজপুরের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন।তিনি বলেন, অপহরণের কিছুক্ষণের মধ্যেই সালাউদ্দিনকে হত্যা করে প্রায় তার সমবয়সী একদল কিশোর।

এরআগে শবেকদরের রাতে পটকা বাজি ফুটানোর কথা বলে সালাহউদ্দিনকে কৌশলে ডেকে নেয় তারা। এরপর কোমল পানীয়ের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে তাকে অচেতন করে গলায় মাছ ধরা জালের রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এ ঘটনায় গোয়েন্দা পুলিশ মূল পরিকল্পনাকারী সোহানসহ ৮ কিশোর ও এক যুবক সহ ৯ জনকে আটক করেছে।

নিহত সালাউদ্দিনের পিতা সিদ্দিকুর রহমান কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, তার কাছে সম্প্রতি বাড়ি বিক্রির ৬ লাখ টাকা ছিল। ঐ টাকার খবর সম্ভবত অপহরনকারীরা জানত। তাই আমার সন্তানকে অপহরন করে ঐ টাকা মুক্তিপণ হিসেবে নিতে চেয়েছিল। তিনি বলেন, আমার সন্তানকে যারা এভাবে হত্যা করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। 

ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ১১ জন জ্ঞাত এবং ৪ থেকে ৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। হত্যাকান্ডে অংশ নেয়া মূলহোতা সোহানসহ ৯ জনকে আটক করা হয়েছে।

জেআইএল/এসইউজে

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও