পুলিশে গিয়ে ধর্ষণ হলো ‘চেষ্টা’, ধর্ষিতার অভিযোগ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

পুলিশে গিয়ে ধর্ষণ হলো ‘চেষ্টা’, ধর্ষিতার অভিযোগ

বরিশাল ব্যুরো ৩:২৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

পুলিশে গিয়ে ধর্ষণ হলো ‘চেষ্টা’, ধর্ষিতার অভিযোগ

ধর্ষকের বিচার চেয়ে বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার একতা বাজারের ইসলামীয়া দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী সংবাদ সম্মেলন করেছে।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বরিশাল প্রেসক্লাবে বাবাকে নিয়ে সে এই সংবাদ সংবাদ সম্মেলন করে।

ওই ছাত্রীর অভিযোগ, গত ৩০ মার্চ সন্ধ্যায় হিজলা উপজেলার চর মেমানিয়া গ্রামের নূরুল হক গাজীর ছেলে সজিব গাজী তাকে ধর্ষণ করেন।

আগে থেকেই সজিব গাজী মাদ্রাসায় যাবার পথে তাকে উত্ত্যক্ত করতেন। ঘটনার দিন বাড়িতে কেউ ছিল না। এই সুযোগে সজিব ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করেন।

ওই ছাত্রীর আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এলে সজিব পালিয়ে যান। পরে ঘটনার বিচার চেয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে গেলে তারা বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য ছেলে পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করে।

সংবাদ সম্মেলনে মেয়েটির বাবা বলেন, ‘আমরা যৌন নিপীড়নের বিচার চেয়ে উল্টো হয়রানির শিকার হচ্ছি। ধর্ষকের শাস্তি চেয়েছি। এজন্য কোনো অর্থ নিতে রাজি হইনি। স্থানীয় গণ্যমান্যরা বিচার করতে পারেননি। পরে থানার দ্বারস্ত হয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘পুলিশের কাছে গিয়ে আমরা আরও অবিচারের শিকার হয়েছি। আমরা করলাম ধর্ষণের মামলা। পুলিশ সেটি ধর্ষণ চেষ্টার মামলা হিসেবে রেকর্ড করেছে।’

নির্যাতিতার অভিযোগ, ধর্ষকদের থেকে পুলিশ টাকা খেয়ে মামলা এভাবে সাজিয়েছে। পরে সে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে মামলা করেছে বলেও জানায়।

তারা সজিব এবং তাকে বাঁচানোর জন্য চেষ্টাকারী পুলিশের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

আইএম

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও