৩ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকা

ঢাকা, ৩১ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

৩ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১২:৫২ অপরাহ্ণ, জুন ১১, ২০১৯

৩ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকা

চলতি বছরের প্রথম ৩ মাসে জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত সময়ে খেলাপি ঋণের পরিমাণ প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা বেড়েছে। ফল স্বরুপ মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ১ লাখ ১০ হাজার ৮৭৩ কোটি টাকা।

প্রতি তিন মাস অন্তর দেশের ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ও খেলাপি ঋণের প্রতিবেদন তৈরি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদন সোমবার চূড়ান্ত করে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

জানা গেছে,গত বছরের ডিসেম্বর শেষে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৯৩ হাজার ৯১১ কোটি টাকা। আর সঙ্গে চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে যোগ হয়েছে প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা। সব মিলিয়ে খেলাপি ঋণ ১ লাখ ১০ হাজার ৮৭৩ কোটি টাকায় বেড়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের মার্চ শেষে বিতরণকৃত ঋণের ১১ দশমিক ৮৭ শতাংশই খেলাপি হয়ে গেছে। মার্চ পর্যন্ত দেশের ব্যাংকিং খাতের বিতরণকৃত ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৩৩ হাজার ৭২৭ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব বলছে, মোট খেলাপি ঋণের অর্ধেকই রাষ্ট্রায়ত্ত ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের। মার্চ শেষে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৫৩ হাজার ৮৭৯ কোটি টাকা।

এ সময় পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলো বিতরণ করেছে মোট ১ লাখ ৬৭ হাজার ৩০৩ কোটি টাকার ঋণ। এ হিসাবে রাষ্ট্রায়ত্ত ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের বিতরণ করা ঋণের ৩২ দশমিক ২ শতাংশই খেলাপি হয়ে পড়েছে।

বিশেষায়িত বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের মার্চ শেষে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৭৮৮ কোটি টাকা, যা তাদের বিতরণকৃত ঋণের ১৯ দশমিক ৪৬ শতাংশ। চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত বিশেষায়িত দুই ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৪ হাজার ৬০২ কোটি টাকা।

খেলাপি ঋণ বেড়েছে বেসরকারি ব্যাংকগুলোতেও। চলতি বছরের মার্চ শেষে ৪০টি বেসরকারি ব্যাংকের মোট ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৫ হাজার ৪৩১ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি হয়ে গেছে ৪৯ হাজার ৯৫০ কোটি টাকার ঋণ। এ হিসাবে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ৭ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ খেলাপি হয়ে পড়েছে।

তবে খেলাপি ঋণের হার কম আছে বিদেশি ব্যাংকগুলোর। দেশে পরিচালিত নয়টি বিদেশি মালিকানার ব্যাংকে চলতি বছরের মার্চ শেষে ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ৩৬ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি হয়ে গেছে ২ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা, যা বিতরণকৃত ঋণের ৬ দশমিক ২০ শতাংশ।

এফএ/এএসটি

 

ব্যাংক ও বীমা: আরও পড়ুন

আরও