সমুদ্র থেকে তোলার পর 'চিনামাটির পুতুল' হয়ে গেল শিশু!

ঢাকা, ২০ মার্চ, ২০১৯ | 2 0 1

সমুদ্র থেকে তোলার পর 'চিনামাটির পুতুল' হয়ে গেল শিশু!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৩০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৫, ২০১৮

সমুদ্র থেকে তোলার পর 'চিনামাটির পুতুল' হয়ে গেল শিশু!

সমুদ্রে ভেসে যাওয়া ১৮ মাস বয়সী একটি শিশুকে সমুদ্র থেকে জীবিত উদ্ধার করেছে নিউজিল্যান্ডের গাস হাট নামের এক জেলে। এটাকে 'অদ্ভুত অলৌকিক ঘটনা' হিসেবেই বর্ণনা করছেন সংশ্লিষ্টরা। সোমবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর দিয়েছে।

নর্থ আইল্যান্ডের মাটাটা সৈকতে ছুটি কাটাতে যাওয়া গাস হাট সমুদ্রে মাছ ধরার সময় দেখেন ছোট্ট একটা মূর্তি পানিতে ভাসছে।

প্রথমে সেটাকে পুতুল মনে করলেও, বাচ্চাটা খলখলিয়ে উঠলে তার ভুল ভাঙে। শিশুটি তার বাবা-মা'র তাঁবু থেকে বেরিয়ে একা সমুদ্রে চলে গিয়েছিল।

'আমি ভেবেছিলাম ওটা একটা পুতুল। এগিয়ে ওর হাত ধরে টেনে তোলার সময়ও ভাবছিলাম এটা পুতুল,' নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড পত্রিকাকে বলেন হাট।

'ওকে দেখে মনে হচ্ছিল চিনামাটির তৈরি, ছোট ছোট চুল ভিজে চুপসে গিয়েছিল। কিন্তু পরে দেখি খলখল করছে। তখন ভাবলাম, 'ঈশ্বর, এই বাচ্চা তো এখনও বেঁচে আছে,' জানান হাট।

গত ২৬ অক্টোবর মাটাটা সৈকতে মার্ফির হলিডে ক্যাম্পে এই ঘটনা ঘটে।

হেরাল্ডকে হাট জানান, তিনি সাধারণত ক্যাম্প থেকে বেরিয়ে নাক বরাবর সোজা গিয়ে সৈকতে মাছ ধরেন। কিন্তু ওইদিন তিনি ঠিক করেন অন্য জায়গায় মাছ ধরবেন, সাধারণত যেখানে যান তার থেকে ১০০ মিটার বামে।

বড়শির সুতা পরীক্ষার সময় তিনি শিশুটিকে পানিতে ভাসতে দেখেন।

'ও সমান গতিতে ভেসে যাচ্ছিল। আমি আর এক মিনিট দেরি হলেই ওকে দেখতে পেতাম না,' বলেন হাট।

'ও মারাত্মক ভাগ্যবান। তবে ওর আসলে এভাবে যাওয়ার কথা ছিল না। ওর তখনও যাওয়ার সময় হয়নি,' যোগ করেন তিনি।

হাটের স্ত্রী ক্যাম্পে শিশুটির বিষয়ে খবর দিলে, তারা বলেন একটি মাত্র দম্পতি সেখানে বাচ্চা নিয়ে গেছেন। ইমারজেন্সি সার্ভিসকেও খবর দেয়া হয়।

'বাচ্চাটা সৈকত দেখে খুব উত্তেজিত ছিল। ওটা ওই দম্পতির প্রথম রাত্রি ছিল এখানে। ওরা এবারই প্রথম এখানে এসেছেন,' মারফি ক্যাম্পের মালিক রেবেকা সাল্টার বলেন বিবিসিকে।

'হাট একজন জেলে এবং তিনি নিয়মিত এখানে বেড়াতে আসেন। ওরা বাচ্চাটাকে আমাদের কাছে নিয়ে এলে আমরা ওকে তোয়ালেতে জড়িয়ে ওর বাবা-মাকে খবর দেই,'  বলেন রেবেকা।

বাচ্চাটা নিজে নিজেই তাঁবুর জিপার খুলে বাইরে চলে যায়। তার পর একা একাই সমুদ্রে গিয়ে পৌঁছায়।

ছেলেকে সমুদ্রে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেছে শুনে তার মা প্রথমে আর্তনাদ করে ওঠেন। পরে তারা হাটস দম্পতিকে ধন্যবাদ জানান।

'সবাই এই ঘটনায় চমকে গিয়েছিল। খুব, খুবই ভাগ্যের জোরে এর পরিণতি ভাল ছিল, কিন্তু তা খারাপও হতে পারতো। এটা একটা অদ্ভুত অলৌকিক ঘটনা,' বলেন রেবেকা।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, তারা ইমারজেন্সি সার্ভিসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। শিশুটি ভালো আছে বলেও নিশ্চিত করেন তারা।

এমআর/আরপি

 

অস্ট্রেলিয়া: আরও পড়ুন

আরও