মুসলিম দেশগুলোর উচিত ফিলিস্তিনিদের অকুণ্ঠ সমর্থন দেওয়া: খামেনি

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

মুসলিম দেশগুলোর উচিত ফিলিস্তিনিদের অকুণ্ঠ সমর্থন দেওয়া: খামেনি

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

মুসলিম দেশগুলোর উচিত ফিলিস্তিনিদের অকুণ্ঠ সমর্থন দেওয়া: খামেনি

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেছেন, ইসরাইল মুছে যাওয়ার অর্থ হলো অবৈধ ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ব্যবস্থা মুছে যাওয়া। এর ফলে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড তার প্রকৃত মালিক অর্থাৎ মুসলমান, খ্রিস্ট্রান ও ইহুদিদের কাছে ফিরে আসবে।

তিনি গতকাল শুক্রবার তেহরানে চলমান ইসলামি ঐক্য সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বিদেশি অতিথি ও রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ইরান কোনো ধরনের কুণ্ঠাবোধ না করেই অতীতের মতো ভবিষ্যতেও ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতা দিয়ে যাবে। অন্য মুসলিম দেশগুলোর উচিৎ ফিলিস্তিনিদের প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থন ও সহযোগিতা দেওয়া।

আয়াতুল্লাহ খামেনি আরও বলেন, ইসলামি বিপ্লব সফল হওয়ার পর থেকেই ইরান এই নীতি অনুসরণ করছে এবং ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতা হলো ইরানের মৌলিক ও অকাট্য নীতির অংশ। ইরান মনে করে, ফিলিস্তিনিদের সহযোগিতা করা গোটা মুসলিম বিশ্বের দায়িত্ব।

তিনি আরও বলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডের মালিক হচ্ছে সেখানার প্রকৃত অধিবাসীরা, তারা মুসলমান, খ্রিস্টান বা ইহুদি যাই হোক না কেন। প্রকৃত অধিবাসীদের অধিকার রয়েছে ফিলিস্তিনের সরকার নির্বাচন করার এবং নেতানিয়াহুর মতো বহিরাগত ও মাস্তান-গুণ্ডাদেরকে সেখান থেকে তাড়িয়ে দিয়ে দেশ পরিচালনা করার। একদিন তা বাস্তবায়িত হবে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, মুসলিম বিশ্বের আলেম ও চিন্তাবিদদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে। তাদেরকে নিজেদের দায়িত্ব পালন করতে হবে।

পার্স টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আলেম সমাজ ও চিন্তাবিদদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা দৃঢ়তার সঙ্গে অধিকার রক্ষায় সোচ্চার হোন, শত্রুদেরকে ভয় পাবেন না। জেনে রাখুন, আল্লাহর রহমতে মুসলিম বিশ্ব অদূর ভবিষ্যতে তাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হবে।

আরপি

 

এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও