মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের বক্তৃতায় নিষেধাজ্ঞা

ঢাকা, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের বক্তৃতায় নিষেধাজ্ঞা

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৯

মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের বক্তৃতায় নিষেধাজ্ঞা

মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত ‘বিতর্কিত’ ইসলামী বক্তা ড. জাকির নায়েকের বক্তব্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটির সরকার।

সম্প্রতি হিন্দু ও চীনা মালয়ীদের নিয়ে মন্তব্যের জেরে সোমবার মালয়েশিয়ার পুলিশ জাকির নায়েককে প্রায় ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে দেশটিতে তার বক্তব্য প্রদান ও প্রচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের খবর দেয় মালয় মেইল, নিউজ১৮ ও ভারতের এনডিটিভি।

অর্থপাচার ও বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগের মুখে থাকা ভারতীয় ইসলাম প্রচারক জাকির নায়েক প্রায় তিন বছর মালয়েশিয়ায় বসবাস করছেন। দেশটির সরকার তাকে স্থায়ীভাবে বসবাসেরও অনুমতি দিয়েছে।

গত ৩ আগস্ট কোটাবারুর এক অনুষ্ঠানে জাকির নায়েক ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিম থেকে মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু হিন্দুরা ‘১০০ গুণ’ বেশি অধিকার ভোগ করেন বলে মন্তব্য করেন।

এই মন্তব্যের পর সমালোচনার ঝড় উঠলে জাকির নায়েককে মালয়েশিয়া থেকে বহিষ্কারের দাবি জোরালো হয়।

তবে সেটির রেশ কাটতে না কাটতেই এই বক্তা ‘তাকে বহিষ্কারের আগে চীনা মালয়েশীয়দের (মালয়েশিয়া থেকে) বহিষ্কার করা উচিত’ বলে মন্তব্য করে ফের বিতর্ক সৃষ্টি করেন।

মালয়েশিয়ার ৩ কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার ৬০ শতাংশ মুসলিম। বাকি জনসংখ্যার অধিকাংশই চীনা ও ভারতীয় বংশোদ্ভূত। ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের অধিকাংশই হিন্দু।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদও জাকির নায়েকের নানা কর্মকাণ্ড নিয়ে সম্প্রতি সমালোচনা করছেন।

নতুন করে তার এই বক্তব্যের পর মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, ‘জাকির নায়েক জাতিগত রাজনীতিতে অংশ নিতে চান এটি স্পষ্ট। তিনি জাতিগত অনুভূতিকে উস্কে দিচ্ছেন। এটি উত্তেজনার কারণ হচ্ছে কি না পুলিশকে তা তদন্ত করে দেখতে হবে।’

মালয়েশিয়ার পুলিশ বলছে, জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে জাকির নায়েকের বক্তব্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

করপোরেট কমিউনিটির প্রধান দাতুক আসমাওয়াতি আহমেদ ও দ্য রয়্যাল মালয়েশিয়া পুলিশ এ তথ্য জানিয়েছে। ইতোমধ্যে দেশটির জহর, সেলানগর, পেনাং, কেদাহ ও সারাওয়াক রাজ্যে জাকির নায়েক নিষিদ্ধ রয়েছেন।

ইসলাম ধর্ম, জঙ্গিবাদ, জিহাদ নিয়ে বক্তব্যের জেরে ৫৩ বছর বয়সী জাকির নায়েককে ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশ কালো তালিকাভুক্ত করেছে। একই অভিযোগে ভারত সরকার তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে শুরু করলে তিনি মালয়েশিয়ায় গিয়ে আশ্রয় নেন।

এমএফ

 

এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও