স্বচ্ছল জীবিকার জন্য কী দুআ করতে পারি?

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

স্বচ্ছল জীবিকার জন্য কী দুআ করতে পারি?

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৯, ২০১৯

স্বচ্ছল জীবিকার জন্য কী দুআ করতে পারি?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। মুহতারাম, আমি মাস্টার্স পাশ করেছি দুই বছর হয়েছে। সরকারী চাকুরীর জন্য পড়ালেখা করছি অনেক, পরীক্ষাও দিয়েছি। কিন্তু কোথাও চাকুরী হচ্ছে না। এর কারণে অর্থনৈতিকভাবে সংকটকাল পার করতে হচ্ছে। এমতাবস্থায় উত্তম চাকুরী বা কোন বৈধ উপায়ে প্রয়োজন পরিমাণ স্বচ্ছল জীবিকা লাভের জন্য আমি কি কি আমল করতে পারি? অনুগ্রহ করে উত্তম পরামর্শসহ কোন দুআ বা আমল সম্বন্ধে জানালে কৃতজ্ঞ হবো।

জবাব:
ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।

প্রিয় ভাই,
প্রথমত আপনার প্রতি পরামর্শ থাকবে, দৈনন্দিন জীবনে আপনি তাকওয়ার পথ অবলম্বন করুন। আর তা হলো, সর্বক্ষেত্রে আল্লাহর প্রতি ভয় ও ভালোবাসায় তাঁর সন্তুষ্টি মোতাবেক চলা এবং তিনি অসন্তুষ্ট হন এমন সবকিছু থেকে বেঁচে থাকা। ইসলামের ফরয ও ওয়াজিব বিধানগুলো যথাযথভাবে আদায় করা এবং গুনাহমুক্ত থাকা। এইসঙ্গে বান্দার হক সম্বন্ধে সচেতন হওয়া। বান্দার হকের মধ্যে রয়েছে, লেনদেনে স্বচ্ছ হওয়া ও মানুষের সঙ্গে সদ্ব্যবহার করা। আত্মীয়তার সম্পর্ক রক্ষা করে চলা। প্রতিবেশীর সঙ্গে উত্তম আচরণ করা। একাধিক হাদীসে এই কাজগুলো পালনে স্বচ্ছল জীবিকা লাভের কথা বলা হয়েছে। পবিত্র কুরআনে ইরশাদ হয়েছে,

وَمَن يَتَّقِ ٱللَّهَ يَجۡعَل لَّهُۥ مَخۡرَجٗا . وَيَرۡزُقۡهُ مِنۡ حَيۡثُ لَا يَحۡتَسِبُۚ وَمَن يَتَوَكَّلۡ عَلَى ٱللَّهِ فَهُوَ حَسۡبُهُۥٓۚ إِنَّ ٱللَّهَ بَٰلِغُ أَمۡرِهِۦۚ قَدۡ جَعَلَ ٱللَّهُ لِكُلِّ شَيۡءٖ قَدۡرٗا

অর্থ : আর যে আল্লাহকে ভয় করে, তিনি তার জন্য উত্তরণের পথ তৈরী করে দেন। এবং তিনি তাকে এমন উৎস থেকে রিযক দিবেন যা সে কল্পনাও করতে পারবে না। আর যে আল্লাহর ওপর তাওয়াক্কুল করে আল্লাহ তার জন্য যথেষ্ট। আল্লাহ তাঁর উদ্দেশ্য পূরণ করবেনই। নিশ্চয় আল্লাহ প্রত্যেক জিনিসের জন্য একটি সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছেন।’–সূরা তালাক, আয়াত:২-৩ 

দ্বিতীয়ত, বেশি বেশি তাওবা ও ইস্তেগফার করুন। কেননা হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত হাদীসে সুস্পষ্টভাবে এসেছে, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি নিয়মিত ইস্তেগফার করবে আল্লাহ তার সব সংকট থেকে উত্তরণের পথ বের করে দেবেন, সব দুশ্চিন্তা মিটিয়ে দেবেন এবং অকল্পনীয় উৎস থেকে তার রিযিকের সংস্থান করে দেবেন।’–আবূ দাঊদ : ১৫২০; ইবনে মাজাহ : ৩৮১৯; তাবরানী : ৬২৯১)

তৃতীয়ত, সংকটকালীন সময়ে বেশি বেশি নামায পড়ে আল্লাহর কাছে দুআ করুন। রিযিকের সংকটে সাহাবায়ে কেরাম (রা.) নামাযের মাধ্যমে আল্লাহর কাছ থেকে রিযিক চেয়ে নিতেন। পাশাপাশি হাঁটতে চলতে কুরআনে উল্লেখিত নিম্নোক্ত দুআটি বেশি বেশি পাঠ করুন–

حَسْبُنَا اللَّهُ وَنِعْمَ الْوَكِيلُ

উচ্চারণ: হাসবুনাল্লাহু ওয়া নি’মাল ওয়াকীল।
অর্থ: আমাদের জন্য আল্লাহই যথেষ্ট এবং তিনি কতই না উত্তম কর্মবিধায়ক।–সূরা আলে ইমরান, আয়াত:১৭৩

হযরত আলী (রা.) বর্ণিত হাদীসে একটি সুন্দর দুআ এসেছে, আপনি সেটিও পড়তে পারেন। সংকট কাটিয়ে স্বচ্ছলতা ও স্বনির্ভরতা অর্জনের এই দুআটি স্বয়ং রাসুলুল্লাহ (সা.) তাঁকে শিখিয়ে দিয়েছিলেন। দুআটি এই–

 اللَّهُمَّ اكْفِنِي بحَلالِكَ عَنْ حَرَامِكَ، وَأَغْنِنِي بفَضْلِكَ عَمَّنْ سِوَاكَ

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মাকফিনী বিহালালিকা আন হারামিকা, ওয়া আগনিনী বিফাদলিকা আম-মান সিওয়াকা।
অর্থ: হে আল্লাহ! আপনার হালাল দ্বারা আমাকে আপনার হারাম থেকে যথেষ্ট করে দিন। এবং আপনার অনুগ্রহ দানে আপনি ছাড়া অন্যদের মুখাপেক্ষিতা থেকে আমাকে স্বনির্ভর করে দিন।–তিরমিজী, হাদীস নং:৩৫৬৩; আদ-দা’ওয়াতুল কাবীর লিল বাইহাকী, দুআ নং:৩০৩

দুআ করছি, আল্লাহ্‌ তাআলা দ্রুত আপনাকে একটি উত্তম কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিন। আমীন।

জবাব প্রদান করেছেন মুহাম্মাদ ফয়জুল্লাহ, মুতাখাসসিস ফিল ফিকহিল ইসলামী, আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী, চট্টগ্রাম।

এমএফ/

 

আমল / জীবন পাথেয়: আরও পড়ুন

আরও