কাশ্মীরি ‘আপেল কুল’ চাষে সফল তারা

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

কাশ্মীরি ‘আপেল কুল’ চাষে সফল তারা

শাহরিয়ার আলম সোহাগ, ঝিনাইদহ ১২:০৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯

কাশ্মীরি ‘আপেল কুল’ চাষে সফল তারা

কাশ্মীরি আপেল কুল। দেখতে অনেকটা মাঝারি সাইজের আপেলের মতো। রং আপেলের মতো সবুজ ও হালকা হলুদের উপর লাল। স্বাদ হালকা মিষ্টি অনেকটা বাউকুলের মতো।

নতুন এ জাতের কুল চাষ করে সফল হয়েছেন ঝিনাইদহ সদরের গান্না ও কালীগঞ্জ উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের দুই কৃষক। এর আগে আপেল কুল চাষ হলেও নতুন জাত কাশ্মীরি আপেল কুল এবারই প্রথম। প্রচলিত আপেল কুল ও বাউকুলের থেকে আকারে বেশ বড় এই কাশ্মীরি আপেল কুল।

কালীগঞ্জ উপজেলার কুল চাষি রিয়াজ উদ্দীন জানান, চলতি বছরের বৈশাখ মাসে সাতক্ষীরা থেকে ১০ হাজার টাকায় ২০০ চারা কিনে এনেছিলেন। যেগুলো প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে আনা হয়েছিল। এ চারা এক বিঘা জমিতে রোপন করেন। মাত্র নয় মাস পর এবারই প্রথম ফল এসেছে। একেকটি গাছে ফলও হয়েছে অনেক।

রিয়াজ উদ্দীন উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের মৃত আবু বক্কর বিশ্বাসের ছেলে। তিনি গত ১০ বছর ধরে বিভিন্ন প্রজাতির কুল চাষ করছেন। নতুন জাতের কাশ্মীরি কুলের পাশাপাশি এবারও তার আট বিঘা জমিতে বাউকুলের চাষ রয়েছে।

কুলচাষি রিয়াজ উদ্দীন আরো জানান, চারা রোপন, চারপাশে ঘেরা ও পরিচর্যা দিয়ে এক বিঘা জমিতে প্রায় ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। আশা করছি প্রথম বছরেই প্রায় দুই লাখ টাকার কুল বিক্রি করতে পারবো।

তিনি জানান, সাধারণত আপেল কুল ও বাউকুল ৩০ থেকে ৭০ টাকা প্রতি কেজি পাইকারী বিক্রি হয়। কিন্তু এই নতুন জাতের কুল ১০০ থেকে ১৫০ টাকা প্রতি কেজি বিক্রি হবে।

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না গ্রামের কৃষক আনিচুর রহমান জানান, এবারই প্রথম আমি সাত বিঘা জমিতে এই উন্নত জাতের কাশ্মীরি কুলের চাষ করেছি। এরমধ্যে চার বিঘা জমিতে ফল এসেছে। তিন বিঘা বিক্রি করবো। ইতিমধ্যে ব্যবসায়ীরা তিন বিঘা বাগনের কুল ৬ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকায় ক্রয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন। বাকি এক বিঘা খাওয়ার জন্য রাখবো।

তনি জানান, গাছ রোপনের শুরু থেকে এ পর্যন্ত গাছ পরিচর্যায় তার খরচ হয়েছে প্রায় তিন লাখ টাকা। প্রথম বছররেই যে কুল ধরেছে তা ধারণার থেকে অনেক বেশি। 

ঝিনাইদহ জেলা কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক জিএম আব্দুর রউফ জানান, সদর উপজেলার গান্না ও কালীগঞ্জ উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামে নতুন জাতের এই কাম্মীরি নূরানি আপেল কুল এ জেলায় প্রথম চাষ হয়েছে। দেশে এ জাতের কুলের চাষ সম্ভবত দ্বিতীয়। শুরু থেকে নতুন জাতের এই কুলচাষে আমাদের কর্মীরা সহযোগীতা করছে।

এআরই