মাল্টা চাষে ঝুঁকছেন নওগাঁর চাষীরা (ভিডিও)

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫

মাল্টা চাষে ঝুঁকছেন নওগাঁর চাষীরা (ভিডিও)

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ ১:০৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮

নওগাঁর পোরশা উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামের কৃষক ওবায়দুল্লাহ শাহ (৫০)। তার অনেক আম বাগান রয়েছে। এ ব্যবসায় লোকসান হওয়ায় আমের পরিবর্তে অন্য ফসলের চিন্তা করেন তিনি। হঠাৎ করে গত বছর রাতে একদিন টেলিভিশনে মাল্টা চাষের প্রতিবেদন দেখে তিনি উৎসাহিত হন। এরপর আর থেমে থাকেননি।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় প্রথমে ৬০০ মাল্টা গাছের চারা রোপন করেন গত বছর।

এক বছরের মাথায় প্রতিটি গাছে ফুল এবং ২০০টি গাছে ফল ধরে। প্রতি গাছে ৪০ থেকে ৭০টি মাল্টা ধরেছে। আর কয়েক দিন পর তিনি ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকার মাল্টা বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা করছেন।

সবকিছু ঠিকঠাক তাকলে আগামী বছর ৩ থেকে ৪ লাখ টাকার মাল্টা বিক্রি হবে বরে তিনি জানালেন।

জানা গেছে, অধিক লাভজনক হওয়ায় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতা ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে ইতোমধ্যে পোরশা উপজেলায় ৫০ বিঘা জমিতে মাল্টা চাষ করা হয়েছে। আগামীতে নওগাঁর বরেন্দ্র ভূমিতে আম চাষের পাশাপাশি মাল্টা চাষের বিপ্লব ঘটবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। 

ঠাঁ ঠাঁ বরেন্দ্রভূমি নওগাঁয় পানির স্তর অধিক গভীরে হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে ধানের চাষ ছাড়া তেমন কোনো ফসল চাষ হয় না। তাই বছরের অধিকাংশ সময় পতিত থাকা জমিতে কৃষকরা গড়ে তোলেন আম বাগান। আর তাই আম বাগানের পাশাপাশি অনেক কৃষক গড়ে তুলছেন অধিক লাভজনক ফসল মাল্টা। 

উপজেলা বেকার যুবক আবদুল্লাহ শাহ, কোরবান আলী শাহসহ অনেকেই জানান, ওবায়দুল্লাহর মাল্টা চাষ দেখে তারা উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন। পাশাপাশি তার কাছ থেকে মাল্টা চাষের পরামর্শ নিচ্ছেন।

আগামীতে তারাও মাল্টার বাগান করবেন। কারণ হিসেবে তারা বলছেন; এটি অত্যন্ত লাভজনক ফসল।

এ বিষয়ে পোরশা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহফুজ আলম বলেন, গত বছর উপজেলায় মাল্টার উপর ২০টি প্রদর্শনী করে কৃষকদের উৎসাহিত করা হয়। এরপর তারা মাল্টা চাষে উদ্বুদ্ধ হন। অনেক কৃষক তাদের জমিতে কৃষি বিভাগ থেকে চারা নিয়ে মাল্টা চাষ করেছেন।

বেশ লাভবান হওয়ায় কৃষকরা মাল্টা চাষের দিকে ঝুঁকছেন বলে মনে করছেন এ কৃষি কর্মকর্তা।

বিএআর/বিএইচ/