ঝড়ে লোকসানের আশঙ্কায় মেহেরপুরের লিচু চাষীরা

ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ | ৩ ভাদ্র ১৪২৫

ঝড়ে লোকসানের আশঙ্কায় মেহেরপুরের লিচু চাষীরা

আবু আক্তার করন, মেহেরপুর ৩:৪৮ অপরাহ্ণ, মে ১৬, ২০১৮

print
ঝড়ে লোকসানের আশঙ্কায় মেহেরপুরের লিচু চাষীরা

শুরুতে গাছে লিচুর ভালো মৌল আসলেও কুয়াশায় কিছুটা ক্ষতির মুখে পড়েন চাষীরা। সেই ক্ষতি পুষিয়ে আবারো নতুন করে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন লিচু চাষীরা। প্রাকৃতিক দুর্যোগে লিচুর ফলন কম হলেও বাজার দর ভালো থাকায় হাসি ফুটেছিল চাষীদের মুখে। সেই হাসি বেশিদিন টেকেনি। হঠাৎ করে কালবৈশাখী ঝড়ে গাছের লিচু শুকিয়ে ফেটে ও ঝড়ে যাচ্ছে। বাজারদর ভালো থাকলেও খরিদ্দার পাচ্ছে না চাষীরা। ফলে লোকসানের মুখে পড়েছেন চাষী ও ব্যবসায়ীরা। প্রাকৃতিক দুর্যোগে মেহেরপুর জেলায় এবার লিচু চাষীদের ফলন বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। 

আম ও লিচুর জেলা মেহেরপুর। আমের সু-খবর হলেও লিচু চাষীরা আছেন বিপাকে। কৃষি বিভাগের হিসেবে, মেহেরপুর জেলায় লিচুর বাগান আছে ৫০০ হেক্টর জমিতে। প্রথম দিকে আবহাওয়া ভালো থাকায় গাছে লিচুর মৌল এসেছিল ভালো। কিন্তু ঘন কুয়াশা ও  শীলাবৃষ্টির কবলে পড়ে লিচু।

এই পরিস্থিতিতে প্রচণ্ড শীলাবৃষ্টি ও কালবৈশাখী ঝড়ে গাছের লিচু স্পট ধরে ফেটে যাচ্ছে। অন্যদিকে ঝড়ে গাছ ভেঙে পড়া ও ঝরে যাওয়ায় এই সব লিচু বাজারে বিক্রি করতে গিয়ে খরিদ্দার পাচ্ছে না চাষীরা।

লিচু চাষীরা বলছেন, গাছের ৫০ভাগ লিচু নষ্ট হয়ে গেছে। যা বিক্রি করে খরচের অর্ধেকটা উঠবে না। গত বছরের তুলনায় অর্ধেকও লিচু আসেনি এবার গাছগুলোতে। বাজারে দাম ভালো থাকলেও ফলন কম হওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদের।

কয়েক জন বাগান মালিক জানান, গতবারের তুলনায় এবছর অনেক কম পরিমাণে লিচু এসেছে। বাজারে দামও ভালো। ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে লিচুর। এ বছরে লিচুতে আমরা লোকসান গুনছি। এ বছর মেহেরপুরে বাইরের জেলা থেকে লিচু ব্যবসায়ীও কম এসেছে।

মেহেরপুর শহরের লিচু চাষী হাসান মন্ডল বলেন, গত ১০ বছরে এমন ঝড় মেহেরপুরবাসী দেখেনি। লিচুর শুরু থেকে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টির কবলে। গতবারের তুলনায় গাছে কম লিচু আসলেও দাম ভালো থাকায় লাভের আশা করেছিলাম। কিন্তু ঝড়ে সেই আশা আর পূরণ হলো না।

বাসস্ট্যান্ড এলাকায় লিচুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, গত বছরের তুলনায় অর্ধেক লিচু আমদানি হয়নি।

কয়েকজন লিচু ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা যায়, এ বছরে প্রতি বাগানে ৫০-৬০ হাজা টাকা করে লোকসান হবে। জেলার বাইরে নিয়েও ভালো দাম পাওয়া যাচ্ছে না। বেশির ভাগ লিচুতে স্পট পড়েছে। লিচুর দামও বেশি।

অন্যবারের তুলনায় এবার প্রতি কাউন লিচু বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার থেকে ২৫’শ টাকা। খুচরা বাজারে একটু ভালমানের লিচু প্রতি পৌন (৮০) পিস ১৫০ টাকা থেকে ১৮০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

মেহেরপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. মো. আক্তারুজ্জামান বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে এখন লোকসানের মুখে লিচু চাষীরা। এবছরে লিচু চাষীরা বাজারে লিচুর দামটা ভালো পাচ্ছে। বর্তমানে বাগানে যে লিচুগুলো আছে সেগুলোতে বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ব্যবহার করার জন্য বলছি।

এএকে/বিএইচ/

 
.


আলোচিত সংবাদ