চবির ‘ডি’ ইউনিটে প্রতি আসনে  লড়বে ৫০ জন

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

চবির ‘ডি’ ইউনিটে প্রতি আসনে  লড়বে ৫০ জন

চবি প্রতিনিধি ৭:০৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০২, ২০১৯

চবির ‘ডি’ ইউনিটে প্রতি আসনে  লড়বে ৫০ জন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে অনার্স (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা  শুরু হবে আগামী ২৭ অক্টোবর। এরই মধ্যে সম্পূর্ণ নিজেদের অটোমেশন পদ্ধতিতে পদ্ধতিতে নিবিরচ্ছিন্ন ভাবে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া শেষ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এবছর চারটি ইউনিট ও দুটি উপ ইউনিটে মধ্যে ‘ডি’ ইউনিটে ১ হাজার ১০৭টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ৫২ হাজার ৯১৭ জন। এ ইউনিটের প্রতিটি আসনের বিপরীতে লড়বে প্রায় ৫০জন পরীক্ষার্থী।

এবছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৮টি বিভাগ পাচঁটি ইনস্টিটিউটের ৪ হাজার ১৮৯টি সাধারণ ও ৭৩৭টি কোটাসহ মোট ৪ হাজার ৯২৬ আসনের বিপরীতে মোট আবেদন করেছে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮৭০ জন পরীক্ষার্থী, যা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। এ হিসেবে, একটি আসন পেতে লড়ছেন  ৩৪ জন পরীক্ষার্থী। এ বছরের আবেদনের সংখ্যা অতীতের সকল রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে এর সংখ্যা ছিল প্রতি আসনে ২৮ জন।  আর আবেদন করেছিলেন ১ লক্ষ ৩৬ হাজার ২৪৭ জন পরীক্ষার্থী।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ভর্তি কার্যক্রমের সমন্বয়ক ও আইসিটি সেলের পরিচালক অধ্যাপক ড. হানিফ সিদ্দিকী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব অটোমেশন পদ্ধতিতে নিরবচ্ছিন্নভাবে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া পরিচালনা করা হয়েছে। ন্যূনতম ১ সেকেন্ডের জন্যও এই প্রক্রিয়ায় কোনো ত্রুটি ঘটেনি। আমরা বরাবরের মতই অত্যন্ত সফলভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছি।

আইসিটি সেলের তথ্য মতে, এবছর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন কার্যক্রম গত ৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে চলে ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত। তবে ১ অক্টোবর একই সময় পর্যন্ত টাকা জমা দেওয়ার সুযোগ পায় আবেদনকারীরা। এসময় পর্যন্ত ১ লক্ষ ৬৬ হাজার ৮৭০ জন ভর্তির আবেদন চূড়ান্ত করে। আর আবেদন করলেও টাকা জমা না দেওয়ায় বাদ পড়েছে ৯ হাজার ৪৯৪ জন।

এছাড়া হিসেব অনুযায়ী, এবছর ‘এ’ ইউনিটের অধীনে বিজ্ঞান অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ এবং সমুদ্রবিজ্ঞান ও মৎস্যবিদ্যা অনুষদের ১ হাজার ২১৪টি আসনের বিপরীতে ৫২ হাজার ৭৮০ জন আবদেন করেছেন। এই ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪৩ জন।

‘বি’ ইউনিটের অধীনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ১ হাজার ২২১টি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৪২ হাজার ৪টি। এই ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তির জন্য লড়বেন ৩৪ জন।

‘সি’ ইউনিটের অধীনে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ৪৪২টি আসনের বিপরীতে ১৪ হাজার ১ জন আবেদন করেছেন। এই ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ৩২ জন।

এছাড়া ‘বি১’ উপ-ইউনিটের অধীনে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ অধিভুক্ত চারুকলা ইনস্টিটিউট, নাট্যকলা বিভাগ ও সঙ্গীত বিভাগের ১২৫টি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে ১ হাজার ৯৪২ জন। এই উপ-ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তি জন্য লড়বেন ১৬ জন।

আর ‘ডি১’ উপ-ইউনিটের অধীনে শিক্ষা অনুষদের ৩০টি আসনের বিপরীতে ৩ হাজার ২২৬ জন আবেদন করেছেন। এই উপ ইউনিটে আসন প্রতি লড়বে ১০৮ জন।

প্রসঙ্গত, এবছর কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ ভিত্তিক ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৭ অক্টোবর, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ ভিত্তিক ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষা ২৮ অক্টোবর, বিজ্ঞান অনুষদ ভিত্তিক ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা ২৯ অক্টোবর এবং ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ ভিত্তিক ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা হবে ৩০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া উপ ইউনিট ‘বি-১” এবং ‘ডি’ ওয়ান ৩১ আক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। বরাবরের মতো এবারও পরীক্ষার হলে ক্যালকুলেটর, মোবাইল ফোন বা যোগাযোগ করা যায় এমন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস, যন্ত্র ও ঘড়ি বরাবরের মতই নিষিদ্ধ থাকবে।

এছাড়া ভর্তির বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট ((http://admission.cu.ac.bd) থেকে জানা যাবে।

এমএফআর/এইচকে

 

ভর্তি ও পরীক্ষা: আরও পড়ুন

আরও