মাশরাফির দাবি, বাংলাদেশই…

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মাশরাফির দাবি, বাংলাদেশই…

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৭, ২০১৯

মাশরাফির দাবি, বাংলাদেশই…

মাঝখানে বৃষ্টি বিশ্বকাপটাকে অনেকটাই পানসে বানিয়ে দিয়েছিল। তবে বৃষ্টির উৎপাত কেটে যাওয়ার পর বিশ্বকাপ আবার জমে ক্ষীর। মজাটা হলো- বিশ্বকাপ নিয়ে বর্তমানের টানটান উত্তেজনাটা মূলত সেমিফাইনালের একটা টিকিটের জন্য!

অস্ট্রেলিয়া এরই মধ্যে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে। পয়েন্ট তালিকা বলছে, নিউজিল্যান্ড এবং ভারতেরও সেমিফাইনালে উঠা এক রকম নিশ্চিত। উত্তেজনারকর ইুঁদর-বিড়াল লড়াইটা কেবল চতুর্থ টিকিটটি নিয়ে। সেই এক টিকিটের জন্য যে লড়াইয়ে আছে ৪টি দল! স্বাগতিক ইংল্যান্ড এবং উপমহাদেশের তিন দল বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের আশার সলতেও মিটমিট করে জ্বলছে। তবে সেই আলো এতোটাই নিবু নিবু যে, ক্যারিবীয়রা দূরবীক্ষণ যন্ত্র দিয়েও তা দেখতে পাচ্ছে না। তাতে অবশ্য উত্তেজনায় ভাটা পড়েনি। সেমিতে উঠার যুদ্ধ নিয়ে বিশ্বকাপের ময়দান বরং আগুন-তপ্ত।

যদি প্রশ্ন করা হয়, এই যে বিশ্বকাপ এখন আগুন-তপ্ত, উত্তেজনায় টাসা, এর মূলে কারা? কাদের জন্য বিশ্বকাপটা জমজমাট? আপনি বলতে না পারলেও এই প্রশ্নের উত্তর মাশরাফি বিন মুর্তজার ঠোটের আগায়-বাংলাদেশ। হ্যাঁ, মাশরাফির দাবি, বাংলাদেশই বিশ্বকাপটা জমিয়ে দিয়েছে।

সাউদাম্পটনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দাপুটে জয়ের পর বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা ৫ দিনের ‘সাধারণ ছুটি’ কাটাচ্ছেন। ক্লান্তি ঝেরে শরীর-মন সতেজ ও ফুরফুরে রাখার উদ্দেশ্যে টিম ম্যানেজমেন্টের ঘোষিত ‘সাধারণ ছুটি’ পেয়ে ক্রিকেটাররা যে যার মতো করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। মানে দলের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম ৫ দিনের জন্য বন্ধ।

তা অনুশীলনে যাওয়ার তাড়না না থাকতে পারে। তাই বলে ক্রিকেটারদের ভাবনা থেকে তো আর বিশ্বকাপ উধাও নয়। যে যেভাবেই সময় কাটাক, মাশরাফি, সাকিব, মুশফিক, তামিমদের মনোকাশে ঠিকই ঘুরে ফিরছে সেমি ফাইনালের ভাবনা। কী হলে সেমিতে যাওয়া যাবে, সেই হিসাবই কষে যাচ্ছেন মনে মনে। কখনো বা প্রকাশ্যেও। অধিনায়ক মাশরাফি যেমন হিসাবটা প্রকাশ্যেই কষছেন।

একদিন আগে সেমি প্রশ্নে বাংলাদেশের সমীকরণটা খুবই সহজ ছিল। ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে বাকি দুই ম্যাচেই বাংলাদেশকে জিততে হবে। পাশাপাশি স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে অন্তত এক ম্যাচে হারতে হবে। তাহলেই সেমিতে উঠে যাবে বাংলাদেশ। কাল পর্যন্তও এমন সমীকরণই ছিল।

কিন্তু কাল নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের সমীকরণটা আরও জটিল করে দিয়েছে পাকিস্তান। সম্ভাবনার হিসাবে ঢুকে পড়েছে তারাও। লড়াইয়ে তপ্ত নিঃশ্বাস ফেলছে শ্রীলঙ্কাও।

তবে মাশরাফির দাবি, পাকিস্তান বা শ্রীলঙ্কা নয়। বিশ্বকাপকে জমিয়ে তোলার মূল কারিগর বাংলাদেশ, ‘সেমিফাইনালে যেতে পারব কি না সেটা পরের হিসাব। কিন্তু এই বিশ্বকাপ তো জমিয়ে তুলেছে বাংলাদেশই! আমাদের কারণেই তো কেউ এখনো বলতে পারছে না, সেমিফাইনালের ছকটা কেমন হবে।’

মাশরাফির দাবিটা অতিরঞ্জিত নয়। তবে শুধু টুর্নামেন্ট জমানোর তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলাই নয়, ‘সাধারণ ছুটি’ পর্বেও মাশরাফিরা সেমিফাইনালের ভাবনা ভেবে চলেছেন। তবে মাশরাফির আপাতত ভাবনা সামনের ভারত ম্যাচ নিয়ে। এজবাস্টনে ভারতকে কীভাবে হারানো যায়, ছুটির মধ্যেই সেই সূত্র খুঁজে ফিরছেন। একটা সূত্র পেয়েও গেছেন মাশরাফিরা। একক ব্যক্তিগত নৈপূণ্যে নয়, মহাশক্তিশালী ভারতকে হারাতে হলে দরকার দলগত পারফরম্যান্স।

এজবাস্টনে ম্যাচটা হবে ২ জুলাই। মানে এখনো কয়েকটা দিন বাকি। এর মধ্যে আরও অনেক সূত্র নিশ্চয় খুঁজে পাবে বাংলাদেশ। সেমির পথ খোলা রাখতে হলে ভারতকে যে হারাতেই হবে।

কেআর/আরপি

 

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: আরও পড়ুন

আরও