ইনানী জাতীয় উদ্যান, কক্সবাজার

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৪

ইনানী জাতীয় উদ্যান, কক্সবাজার

বুরহানুর রহমান ১২:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৭

print
ইনানী জাতীয় উদ্যান, কক্সবাজার

কক্সবাজার থেকে ২২ কিলোমিটার দক্ষিণ দিকে এ বনাঞ্চলের কাছেই উত্তরে হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান ও দক্ষিনে টেকনাফ বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য। সম্প্রতি ইনানী সংরক্ষিত বনাঞ্চলকে জাতীয় উদ্যান ঘোষণা করা হয়েছে। দুঃখজনক ভাবে এ বনের secondary plantation করা হয়েছে একাশিয়া ও মিনজিরি গাছ দিয়ে। ৩১৭ প্রজাতির উদ্ভিদে সমৃদ্ধ এ বনের প্রথম ১ কিলোমিটার একাশিয়া ও মিনজিরি ছাড়া অন্য কোনো গাছ দেখা যায় না বললেই চলে।

এ বনাঞ্চল ৩১৬ প্রজাতির বন্য প্রাণী বৈচিত্রে সমৃদ্ধ। প্রধানত এশীয় হাতি, অজগর, ঠোঁট মোটা হারিয়াল, তেল শালিক, উল্লুক গিবন ও মায়া হরিণের দেখা মেলে (আমরা অবশ্য কিছুই দেখিনি, বন্য প্রাণী তো দূরে থাক পুরো অফিসে বেশ খুঁজা-খুঁজি করে কোনো বন কর্মকর্তা বা কর্মচারীকেও পায়নি)। 

কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের আওতায় একটি ইকোট্যুরিজম কেন্দ্রও খোলা হয়েছে। আমরা যখন গেছি তখন বাংলাদেশ আর্মি এ বনে ট্রিনিং ক্যাম্প করায় অনুমতি সংক্রান্ত কিছু বাধ্যবাধকতা ছিল। বড় কোন ধরণের সমস্যা ছাড়ায় আমরা অনুমতি পেয়ে গেলাম। শর্ত একটাই যে রাস্তা দিয়ে যাবো সে রাস্তা দিয়ে ফেরা যাবে না। ভিন্ন রাস্তা দিয়ে ফিরতে হবে। 

মিশ্র চিরহরিৎ এ বনাঞ্চলের ব্যাপ্তি ৮,১৬১.৬৭ হেক্টর (২০,১৬৭.৪৯ একর বা ৩১.৫১২ স্কয়ার মাইল)। 



তথ্য ও ছবি : বুরহানুর রহমান 

ইসি/

 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad