সাইকেলে চড়ে মেরিন ড্রাইভ, কক্সবাজার

ঢাকা, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

সাইকেলে চড়ে মেরিন ড্রাইভ, কক্সবাজার

বুরহানুর রহমান ১২:২৫ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৭

print
সাইকেলে চড়ে মেরিন ড্রাইভ, কক্সবাজার

কিছু হিসাব মেলানো আসলেই কঠিন। ১০০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে কায়সার ভাই এতটা ওজন কমিয়ে ফেললেন যে তার সার্ট-প্যান্ট সব ঢিলা হয়ে গেল। আমিও তার সাথে সাইক্লিং করলাম, তাকে ছাড়া আবার সাইকেল চালিয়ে ফিরলাম। প্রায় ২০০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে আমার ১কেজি ওজন বেড়ে গেল। খেলাম প্রায় একই খাবার-পরিমাণেও প্রায় সমান। সাইকেল চালালামও দ্বিগুন, তাহলে ওজনটা লাগলো কোথা থেকে?

.

সাইকেল চালিয়েছি সাগরের ধার দিয়ে। থেকেছিও একদম সাগরের পাশে। তাই পুরো ৫ দিন শুধু সৈকত আর সাগরের গল্প শুনেছি। দীর্ঘ রাস্তা তাই গল্পও ফুরায় না। কখন ফিস ফিস, কখন বা গর্জন করে, সাগর গল্প বলেই চলেছে। প্রেমের গল্প, দুঃখের গল্প, হাঁসির গল্প, কান্নার গল্প… আর কত কি।

সৈকতের পাশে থাকায় সাগরের গর্জনে মধ্যরাতে প্রায়শ ঘুম ভেঙে গেছে। যেন সাগর বলেছে আমি গল্প বলছি আর তুমি ঘুমাচ্ছ। অন্য পাশে পাহাড়েরে ধার ঘেঁষে বিস্তীর্ণ সুপারির বাগান। একপাশে দিগন্ত জোরা নীলের হাতছানি অন্যদিকে সবুজের মাদকতা।

প্রায় পুরো রাস্তা জুড়েই সাগরের সাথে পাহাড়ের প্রেম। আর রাতে অধিবৃত্তি হিসেবে ছিল গৃহত্যাগী হওয়ার মতো জ্যোৎস্না। ভরা জ্যোৎস্নায় ভরা জোয়ার, তাই সাগরের পানি বারবার আমাদের তাবু ছুয়ে দিতে চেয়েছে। কি মনোরম, কি সুন্দর আর অনন্ত বিশুদ্ধ বাতাস। বলছি বিশ্বের সবচে দীর্ঘতম (১২৫ কিলোমিটার) সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের পাশ দিয়ে সাইক্লিং করার অভিজ্ঞতার কথা।

২৫ ডিসেম্বর ২০১৫, সকালবেলা কক্সবাজারে বাস থেকে নেমে আরিফ ভাই, কায়সার ভাই, ইয়াসিন ভাই, এলিজা ভাবী আর আমি কক্সবাজার থেকে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে সাইক্লিং করে টেকনাফ গেছি আর ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫ আমি আর ইয়াসিন ভাই টেকনাফ থেকে কক্স-সাহেবের বাজারে (কক্সবাজারের আদি নাম পালঙ্কি।

ওয়ারেন হাস্টিংস এর সময় ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির পক্ষ থেকে ক্যাপ্টেন হিরাম কক্স এই আউটপোস্টের সুপারিন্টেনডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে এসেছিলেন।

পরবর্তীতে তারই নাম অনুসারে কক্স সাহেবের বাজার বা কক্সবাজার নামকরণ হয়) ফিরেছি সাইকেল চালিয়ে। সাথে রায়হানও ছিল; কিন্তু সে সাইক্লিংএ অংশগ্রহণ করেনি। আমরা ২৬, ২৭ ও ২৮ তারিখ ছিলাম সেন্টমার্টিন। 

যেভাবে যাবেন : সম্পুর্ণ মেরিন ড্রাইভ যদি আপনি নিবিরভাবে দেখতে চান তাহলে আপনাকে পায়ে হেঁটে অথবা সাইকেলে চড়ে যেতে হবে। আমরা পুরো পথ সাইকেলে করে গিয়েছিলাম।

তাই আমরা  কক্সবাজার পৌছানোর পর খুব সকালে সেখান থেকেই সাইকেলে করে মেরিন ড্রাইভ ধরে রওনা শুরু করি। 

এছাড়া, বাংলাদেশের যে কোনো স্থান থেকে টেকনাফ যাওয়ার জন্য আপনি বিভিন্ন বাস সার্ভিস পাবেন। এছাড়া আপনাকে প্রথমে যেতে হবে কক্সবাজার।

কক্সবাজার থেকে প্রথমে জিপে চড়ে, অথবা লোকাল বাস সার্ভিসে করে যেতে পারবেন টেকনাফ। অথবা আপনি নিজেস্ব পরিবহন নিয়েও টেকনাফ যেতে পারবেন। 

তথ্য ও ছবি : বুরহানুর রহমান 

ইসি/একে

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad