কালের সাক্ষী হরিণমারী আমগাছ, ঠাকুরগাঁও

ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫

কালের সাক্ষী হরিণমারী আমগাছ, ঠাকুরগাঁও

বদরুল ইসলাম বিপ্লব, ঠাকুরগাঁও ১২:১৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ১২, ২০১৮

print
কালের সাক্ষী হরিণমারী আমগাছ, ঠাকুরগাঁও

অনেক পুরনো, অনেক বড় বট বা পাকুর গাছের কথা আমরা অনেকবারই হয়তো শুনেছি। কিন্তু আপনি কত পুরনো আম গাছের কথা শুনেছেন? ২০০ বছরের পুরনো আম গাছের ইতিহাস শুনতে চাইলে আপনাকে যেতে হবে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিণমারীতে। প্রথম দেখাতে বটগাছের মতো বিশাল আকৃতি দেখে অনেকেই ভুল করে বসেন। বট গাছের মতো বিশাল আকৃতি হলেও গাছটি আসলে বটগাছ নয়, এটি একটি আমগাছ। জেলা শহর হতে ২৫ কিলোমিটার পশ্চিমে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা। উপজেলা শহর হতে ১৫ কিলোমিটার পশ্চিমে সীমান্তবর্তী গ্রাম হরিণমারীতে অবস্থিত একটি বিশাল আম গাছ। জেনে নেওয়া যাক সেই আম গাছটি সম্পর্কে-

নয়নাভিরাম শোভা ছড়ানো আমগাছটির প্রত্যেকটি শাখা বা ডাল গাছের মূলকাণ্ড থেকে বের হয়ে ঢেউয়ের মতো আকৃতি ধারণ করে মাটি স্পর্শ করেছে। ডালগুলো মূলকাণ্ড থেকে বেরিয়ে একটু উপরে উঠেই আবার তা মাটিতে নেমে গেছে। তারপর আবারো উপরে উঠে গেছে। যেন মাটির সাথে ছোঁয়াছুঁয়ি খেলায় মেতেছে।

লতানো প্রকৃতির ব্যতিক্রমী এ আম গাছটি প্রায় দুই বিঘা জমিজুড়ে অবস্থিত। স্থানীয়দের মতে, এ গাছটির বয়স ২০০ বছরের কম নয়। গাছের মালিক ইসলাম উদ্দীন। তার দেওয়া তথ্যমতে, তার দাদার পিতা ওই গাছটি লাগিয়েছেন।

এই গাছটিকে ঘিরে হরিণমারীকে একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রতিবছর ঈদের সময় এখানে মেলার আয়োজন করা হয়। তখন হাজার হাজার দর্শনার্থীর ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠে সীমান্তবর্তী এ গ্রাম।

কয়েক মাস আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ স ম আরেফিন সিদ্দিকসহ উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের একদল শিক্ষক সরেজমিনে এ গাছ পরিদর্শন করে এটিকে বিখ্যাত গাছ বলে মন্তব্য করেছেন।

যেভাবে যাবেন: ঠাকুরগাঁও জেলা শহর হতে ২৫ কিলোমিটার পশ্চিমে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা। উপজেলা শহর হতে ১৫ কিলোমিটার পশ্চিমে সীমান্তবর্তী গ্রাম হরিণমারীতে অবস্থিত। বালিয়াডাংগী হযে ডাংগী বাজার দিয়ে/লাহিড়ী বাজার দিয়ে/চৌরাস্তা দিয়ে ভ্যান, বাস, মিশুক, যেকোনো লোকাল বাহনে করেই যেতে পারেন হরিণমারী।

ইসি/বিএইচ/

 
.




আলোচিত সংবাদ