‘সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান’ মাউলিনং গ্রাম

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৪

‘সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান’ মাউলিনং গ্রাম

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:২২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

print
‘সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান’ মাউলিনং গ্রাম

কোনো কোনো ব্যাক্তির নিজেস্ব পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার বাতিক আছে। তাই বলে পুরো গ্রামের সব মানুষের একই রকম পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার বাতিক কিন্তু খুবই বিরল। তবে ভারতের মেঘালয়ে মাউলিনং গ্রামের বাসিন্দারা কিন্তু সেই বিরলের মধ্যে অন্যতম। পুরো গ্রামবাসী এতটাই পরিষ্কার যে তারা দল বেঁধে তাদের গ্রাম পরিষ্কার রাখে। যেনতেন পরিষ্কার নয় কিন্তু, পরিষ্কার রাখার জন্য গ্রামটি এশিয়ার সব থেকে পরিষ্কার গ্রাম হিসেবে মনোনীত হয়। তবে এমনটা শুধু একটি গ্রামে না হয়ে সব গ্রামে হলে কিন্তু ব্যাপারটা মন্দ হতো না।

মাউলিনং শব্দের অর্থ হল ‘সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান’। এই গ্রাম ২০১৬ সালে এশিয়ার সব থেকে পরিষ্কার গ্রাম হিসেবে মনোনীত হয়। এই গ্রামের রাস্তার কোথাও বিন্দু পরিমাণ ময়লা, কাঁদা খুজে পাওয়া যাবে না। প্রতিটা বাড়িতেই আছে চমৎকার ফুলের বাগান। দেখলে মনে হয়ে রুপকথার কোনো এক গ্রামে চলে এসেছি। এখানের রাস্তা আসলেই অনেক পরিষ্কার।

কিছু দূর পর পর হাতে তৈরি বাঁশের ঝুড়ি রাখা আছে। তাই পথচারী, ট্যুরিস্ট অথবা বাচ্চারা ময়লা আবর্জনা পথে ঘাটে না ফেলে ঝুড়িতে ফেলে। তাই রাস্তা ঘাট তেমন একটা নোংরা হয় না।

এছাড়া এই গ্রাম পরিষ্ককার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আলাদা একটি কমিটিও আছে। যাদের কাজই হচ্ছে সব দিক ঠিক রেখে গ্রামবাসীকে নিয়ে পুরো গ্রাম পরিষ্কার করা।

গ্রামের ভিতরে টুরিস্ট স্পট। প্রবেশমুখে প্রতি গাড়ির জন্য ৫০রুপি দিয়ে টিকিট কাটতে হবে। টাকা নেয়ার সময় ওরা বলে নিবে যে এটা ওদের গ্রামের পরিষ্কার পরিছিন্নতার কাজে ব্যয় করা হবে। আর ৫০রুপি টিকিট হলেও এই পরিষ্কার গ্রামটি দেখার জন্য দিনে দিনে ট্যুরিস্টদের সংখ্যা বেড়েই চলছে

যেভাবে যাবেন: সোনাংপেডাং গ্রাম থেকে একটা গাড়ী রিজার্ভ করলে ওই গাড়ী আপনাকে মাওলিনং গ্রাম, লিভিং রুট ব্রিজ দেখিয়ে আবার ডাউকি বর্ডারে নামিয়ে দেবে। ভাড়া পড়বে ১৮০০-২০০০ রুপি।


ইসি/

 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad