এবার থেকেই ‘টেনিস বিশ্বকাপ’!
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০ | ২৪ আষাঢ় ১৪২৭

এবার থেকেই ‘টেনিস বিশ্বকাপ’!

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:০৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৮

এবার থেকেই ‘টেনিস বিশ্বকাপ’!

ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, রাগবি-এসব দলীয় খেলাতেই বিশ্বকাপ আছে। কিন্তু টেনিসে? টেনিসে আক্ষরিক কোনো বিশ্বকাপ নেই। এখন নেই তো কি! ফুটবল, হকি, ক্রিকেটের মতো এবার থেকে টেনিসও গায়ে মাখতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ উত্তাপ-উত্তেজনা। আগামী নভেম্বরেই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে টেনিসের বিশ্বককাপ।

ধাধা নয়, ঘটনা সত্যি। আক্ষরিক অর্থেই এবার থেকে প্রচলন হতে যাচ্ছে টেনিস বিশ্বকাপের। ঠিক কাগজে-কলমে না থাকলেও টেনিসের বিশ্বকাপ কিন্তু আগে থেকেই ছিল। ডেভিস কাপকেই টেনিসপ্রেমীরা বলত টেনিসের বিশ্বকাপ। কিন্তু এখন থেকে দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানো নয়। ফুটবল, ক্রিকেটের মতো সত্যিকার অর্থেই বিশ্বকাপ উন্মাদনায় কাঁপবে টেনিস দুনিয়া। বর্তমানের ডেভিস কাপ-ই রূপ বদলে হয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপ!

মজার বিষয় হলো, টেনিস অঙ্গনের কারো উদ্যোগে নয়। টেনিস বিশ্বকাপের প্রচলন হতে যাচ্ছে একজন ফুটবলারের হাত ধরে। তিনি বার্সেলোনার স্প্যানিশ ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে। ফুটবল দুনিয়া যাকে কলম্বিয়ান পপ সংগীতশিল্পী শাকিরার প্রেমিক হিসেবেই আলাদাভাবে চিনে। তো পিকের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান কসমস গ্রুপই ডেভিস কাপকে ‘বিশ্বকাপে’ রূপান্তরের উদ্যোগ নিয়েছে।

টেনিস বিশ্বকাপ আয়োজনে অর্থায়ন করছে পিকের কসমস গ্রুপই। আর আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশনও কসমসের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে। মোট ৭১.৪৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ডেভিস কাপ হয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপ। টেনিসের এই বিশ্বকাপ নিয়ে খুবই আশাবাদী আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশনের সভাপতি ডেভিড হ্যাগার্টি, ‘সত্যিই এটা দারুণ একটা ব্যাপার। টেনিসের দর্শকদের জন্য নতুন এই টুর্নামেন্টটি হবে বড় একটা বিষয়। এর মাধ্যমে খেলোয়াড়, দর্শক, স্পন্সররা আরও বেশি বিনোদন পাবে। খেলাটির আকর্ষণও বাড়বে।’

টেনিস বিশ্বকাপের পরিকল্পনাকারী পিকেও রোমাঞ্চিত, ‘ডেভিস কাপের ভবিষ্যতের বিষয়ে এই পদক্ষেপটি নিতে পেরে ব্যক্তিগতভাবে আমি খুব খুশি। আশা করি এই উদ্যোগ টেনিসের আরও উন্নতি ঘটাতে পারবে।’

শুধু নাম বদল নয়। পরিবর্তন আসছে টুর্নামেন্টের নিয়ম-কানুন এবং ফরম্যাটেও। সেই ১৯০০ সালে একক প্রচেষ্টায় ডেভিস কাপের প্রচলন ঘটনা ডোয়াইট ফিলি ডেভিস। অবশ্য শুরুতে টুর্নামেন্টটির নাম ছিল ‘আন্তর্জাতিক লন টেনিস চ্যালেঞ্জ।’ ১৯৪৫ সালে ফিলি ডেভিসের মৃত্যুর পর তার নামানুসারেই নাম বদলে হয়ে যায় ডেভিস কাপ। ১৯০০ সালে প্রথম টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিল মাত্র দুটি দেশ। সেখান থেকে ডেভিস কাপের সদস্য সংখ্যা এখন একশ ছাড়িয়েছে।

১১৮ বছর পর পরিবর্তিত হওয়া বিশ্বকাপেও সব সদস্য দেশই প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পাবে। তবে নানা ধাপের বাছাইপর্ব পেরিয়ে বিশ্বকাপের মূল মঞ্চে অংশ নিতে পারবে মোট ১৮টি দেশ। মানে টেনিসের বিশ্বকাপটা হতে যাচ্ছে ১৮ দলের। মূল মঞ্চে অংশ নিতে যাওয়া দল নির্বাচনের প্রক্রিয়াতেও পরিবর্তন আসছে। আগের আসরের ৪ সেমিফাইনালিস্ট সরাসির বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে। এর সঙ্গে বাছাইপর্ব থেকে উঠে আসবে ১২টি দল। বাকি দুটি দল সুযোগ পাবে ওয়াইল্ড কার্ডের সুবাদে।

টেনিসপ্রেমীরা এখন থেকেই টেনিস বিশ্বকাপ-উত্তেজনায় গা ভাসানোর প্রস্তুতি শুরু করে দিতে পারেন।

কেআর

 

 

 

: আরও পড়ুন

আরও