শ্রীমঙ্গলে অ্যাজবেসটস বিষয়ক স্টেইকহোল্ডার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮ | ১০ মাঘ ১৪২৪

শ্রীমঙ্গলে অ্যাজবেসটস বিষয়ক স্টেইকহোল্ডার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ৫:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৭

print
শ্রীমঙ্গলে অ্যাজবেসটস বিষয়ক স্টেইকহোল্ডার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  

বাংলাদেশে ক্ষতিকর খনিজ পদার্থ অ্যাজবেসটস নিষিদ্ধের লক্ষ্যে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে আয়োজিত অংশীজনদের সাথে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে ওশি ফাউন্ডেশন।

শুক্রবার সকালে স্থানীয় জেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর (ডিআইএফই) ও বিভাগীয় শ্রম দফতরের শীর্ষ কর্মকর্তারা, চা শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন, টি এস্টেট স্টাফ এসোসিয়েশনের নেতা, চা শ্রমিক পঞ্চায়েত প্রতিনিধি এবং গবেষক ও শ্রম অধিকার কর্মী।

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওশির নির্বাহী পরিচালক এ আর চৌধুরী রিপন। বাংলাদেশ জাতীয় অ্যাজবেসটস প্রোফাইলের খসড়া উপস্থাপন করেন ওশির প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মো. আসাদ উদ্দিন।

মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের (ডিআইএফই) উপ-মহাপরিদর্শক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, শ্রীমঙ্গলের বিভাগীয় শ্রম দফতরের উপ-মহাপরিচালক মো. মনিরুজ্জামান, শ্রীমঙ্গল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম ইদ্রিস আলী ও বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরি।

সভায় বাংলাদেশে অ্যাজবেসটস ব্যবহার ও আমদানি নিষিদ্ধকরণের লক্ষ্যে সুপারিশ ও ভবিষ্যত করণীয় নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া আলোচকরা অবিলম্বে মৌলভীবাজার জেলাসহ দেশের সকল বাগানে অবস্থিত অ্যাসবেস্টসযুক্ত ভবনসমূহ চিহ্নিতকরণ ও অপসারণকল্পে বিধি অনুসরণপূর্বক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

এছাড়া চা সেক্টরে অ্যাসবেস্টস বিষয়ক গণসচেতনতা বৃদ্ধিকল্পে বাংলাদেশিয় চা সংসদ, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ টি এস্টেট স্টাফ অ্যাসোসিয়েনের মধ্যে কার্যকর সংলাপ সৃষ্টি, সমন্বয় সাধন ও ক্যাম্পেইন কার্যক্রম পরিচালনার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

ওশির নির্বাহী পরিচালক এ আর চৌধুরী রিপন বলেন, ‘আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) যৌথ রিপোর্টে বিশ্বে প্রতিবছর ১ লাখ শ্রমিক অ্যাজবেসটস সংক্রমণ জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করে।’

তিনি বলেন, ‘অ্যাজবেসটস নীরব মরণ ঘাতক। কর্মস্থলে অ্যাজবেসটস যুক্ত উপাদান নিয়ে কাজ করা, ভাঙাচুর ও স্থানান্তরের সময় উড়ন্ত অ্যাজবেসটস ধুলি বাতাসের সঙ্গে মিশে শ্বাসপ্রশ্বাসের সাথে দেহে প্রবেশ করে এবং ধীরে ধীরে মরণ ঘাতক ক্যান্সারের জন্ম দেয়।’

উল্লেখ, বর্তমানে বাংলাদেশে অ্যাজবেসটসের ব্যবহার আইনগতভাবে নিষিদ্ধ নয়।

এমআইএ/এসজি

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad