মৌলভীবাজারে দুই বান্ধবীকে ধর্ষণ, ৩ ধর্ষক জেলে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

মৌলভীবাজারে দুই বান্ধবীকে ধর্ষণ, ৩ ধর্ষক জেলে

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৬, ২০২০

মৌলভীবাজারে দুই বান্ধবীকে ধর্ষণ, ৩ ধর্ষক জেলে

মৌলভীবাজারে এক কলেজ ছাত্রীসহ তার আরেক বান্ধবীকে  পূর্ব পরিচিত পাঁচ বন্ধু বেড়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষর্ণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ তিন ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

তিন ধর্ষক হলেন- মৌলভীবাজার সদর উপজেলার উত্তর জগন্নাথপুর গ্রামের ইসলাম মিয়ার ছেলে মুন্না মিয়া (২৫), আদরিছ মিয়ার ছেলে আকাশ মিয়া (২৫) ও  ছুরুক মিয়ার ছেলে হুমায়ুন মিয়া (২৩)। তাঁরা তিনজনই সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালক।

মঙ্গলবার দুপুরের দিকে মৌলভীবাজার শহরের  ইনডোর স্টেডিয়ামের দক্ষিণ পাশে নির্জন জঙ্গলে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, পূর্ব পরিচিত সূত্রে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে ওই দুই বান্ধবীকে ধর্ষণ করা  হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

থানায় অভিযোগে বলা হয়, পূর্ব পরিচয়ের সূত্রে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে ওই দুই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণের শিকার দুইজনকে সুস্থতার জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধর্ষনের ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে কলেজছাত্রী বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে পাঁচজনকে আসামি করে মৌলভীবাজার সদর মডেল থানায় মামলা রজু করেন। (মৌলভীবাজার মডেল থানায় মামলা নং-১৩, তাং-১৪/০১/২০২০ ধারা-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ৯(১)/৯(৩)/৩০) ।

বুধবার বিকেলে মডেল থানা পুলিশ প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানায়, মঙ্গলবার দুপুরের দিকে মৌলভীবাজার সরকারি মহিলা বিদ্যালয়ের ১৮ বছর বয়সী কলেজ ছাত্রী ও তাঁর বান্ধবী মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব এলাকা থেকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় উঠেন। সেখান থেকে কলেজছাত্রীর সঙ্গে পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে কলেজ ছাত্রসহ পাঁচ বন্ধু কৌশলে বেড়ানোর কথা বলে মৌলভীবাজার  ইনডোর ষ্টেডিয়ামের দক্ষিন পাশে নির্জন জঙ্গলে নিয়ে যান।

পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী আসামিরা স্টেডিয়ামের পেছনের বনের ঝোপে দুই তরুণীকে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে  ধর্ষণ করেন। পরে তরুণীরা সেখানে থেকে বেরিয়ে এসে পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পুলিশ তরুণীদের আত্মীয়স্বজনকে খবর দেয় এবং তাদের দ্রুত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে। ধর্ষিতা দুজনেরই বাড়ি মৌলভীবাজার সদর উপজেলায়।

ধর্ষণের তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, ‘গ্রেপ্তারকৃত তিনজন কলেজছাত্রীর পূর্বপরিচিত। পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন।

তিনি জানান, ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আমরা দু’জন ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছি। পরে রাতে আরেক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এরা একে অপরের পূর্বপরিচিত বলে জানা গেছে। আরও বিস্তারিত তদন্ত চলছে।

এ মামলায় সহযোগী অন্য পলাতক আসামি একই গ্রামের মৃত কাচা মিয়ার ছেলে আব্দুল মুকিত (২২) ও ছুরুক মিয়ার ছেলে হাসান মিয়া (১৯) গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

এমআইএ/এইচকে

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও