করোনা আতঙ্কে পুঁজিবাজারে বড় দরপতন
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

করোনা আতঙ্কে পুঁজিবাজারে বড় দরপতন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১২:৫২ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৯, ২০২০

করোনা আতঙ্কে পুঁজিবাজারে বড় দরপতন

সম্প্রতিক সময়ে বিক্রয় চাপ ও দর পতনের মধ্যে দিয়েই চলছিল পুঁজিবাজারের লেনদেন। দর পতনের সেই আগুনে ঘি ঢেলে দিয়েছে করোনা আতঙ্ক। এখন পর্যন্ত বিশ্বের শতাধিক দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে।

রোববার বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাসে তিনজন শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

আর এই খবরেই সোমবার পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতন দেখা গেছে।

লেনদেন শুরুর প্রথম ঘণ্টায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক কমেছে ২০৫ পয়েন্ট। এসময় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক কমেছে ৪৫৭ পয়েন্ট।

ডিএসই ও সিএসই’র বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, দুপুর সাড়ে ১১ টায় অর্থাৎ লেনদেন শুরুর পর প্রথম ঘন্টার লেনদেন শেষে ডিএসই’র মূল্যসূচক ১৯২.৭৭ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। যা ডিএসইএক্স মূল্যসূচক প্রতিষ্ঠার পর সর্বোচ্চ দরপতন।

এসময় শরীয়াহ্ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর মূল্যসূচক কমেছে ৪৬.৮৮ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক কমেছে ৬২.১৪ পয়েন্ট।

মূল্যসূচকের বড় দর পতনে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে মাত্র ৩টির, দর কমেছে ৩৩৯টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ৭টি প্রতিষ্ঠানের।

এসময় ডিএসইতে ১৮৬ কোটি ২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

প্রথম ঘন্টার লেনদেনে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে ভিএফএস থ্রেড। কোম্পানিটির ৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। টার্নওভারের দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল স্কয়ার ফার্মা, কোম্পানিটির ৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভারের তৃতীয় অবস্থানে ছিল ওরিয়ন ইনফিউশন।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া ১৭০টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬টির, দর কমেছে ১৬২টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ২টি প্রতিষ্ঠানের দর। প্রথম ঘন্টা শেষে সিএসইতে ৬ কোটি ২০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

বিক্রয় চাপে সিএসই’র সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই কমেছে ৪৫৭.৪৪ পয়েন্ট। এসময় সিএসইতে টার্নওভার তালিকায় ছিল বেক্সিমকো, কোম্পানিটির ১ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিভিন্ন সিকিউরিটিজ হাউজের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলেন, হাউজে অন্যান্য দিনের তুলনায় উপস্থিতি কম। কিন্তু ফোন অর্ডার ও অনলাইনে বিক্রয় চাপ বেড়েছে।

হঠাৎ করে বাজারে বিক্রয় চাপ বৃদ্ধি ও রেকর্ড দর পতনের কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, গতকাল দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত তিন জন শনাক্ত হয়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও করোনার প্রভাবে আমদানি রপ্তানিতে ভাটা দেখা গেছে। যার প্রভাবে পুঁজিবাজারেও নেতিবাচক প্রভাব দেখা দিয়েছে। মনে হচ্ছে করোনা আতঙ্কেই বিনিয়োগকারীদের বিক্রয় চাপ।

জেডএস/এইচআর

 

অর্থনীতি : আরও পড়ুন

আরও