অর্থমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর ডিএসইর ২৩০ পয়েন্ট লোপাট

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬

অর্থমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর ডিএসইর ২৩০ পয়েন্ট লোপাট

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:৪৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০৮, ২০২০

অর্থমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর ডিএসইর ২৩০ পয়েন্ট লোপাট

বিক্রয় চাপে সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসেও দরপতনে ভুগেছে পুঁজিবাজার। অর্থমন্ত্রীর সাথে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষের বৈঠকের পর টানা ৪ কার্যদিবসেই দরপতন দেখেছে বিনিয়োগকারীরা। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের প্রধান এই পুঁজিবাজারের মূল্যসূচক কমেছে ২৩০ পয়েন্ট।

এদিকে, দরপতন অব্যাহত রয়েছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)। টানা ৪ কার্যদিবসের দরপতনে সিএসই’র সাধারণ মূল্যসূচক সিএসইএক্স কমেছে ৪০২.৩৯ পয়েন্ট। ডিএসই ও সিএসই’র বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৫১টি, দর কমেছে ২৪৯টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ৫১টি প্রতিষ্ঠানের। দিনশেষে ডিএসইতে ৯ কোটি ৯১ লাখ ৭৯ হাজার ৩৮০টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

এদিন ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২৭৯ কোটি ৯৬ টাকা। এর আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩২৭ কোটি ৪৬ লাখ টাকা।

বুধবার লেনদেন শেষে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক কমেছে ৫৩.০৬ পয়েন্ট। এসময় ডিএসইএক্স সূচক ৪২২৮ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সার্বিক মূল্যসূচক ছিল ৪৪৫৯.২৯ পয়েন্ট। অর্থাৎ চলতি সপ্তাহের ৪ দিনের ডিএসই’র মূল্যসূচক কমেছে ২৩০.৯৩ পয়েন্ট।

অপরদিকে, ডিএসইএস ও ডিএস-৩০ সূচক যথাক্রমে ১৯.০৯ ও ১৪.৮৮ পয়েন্ট কমেছে।

দিনশেষে ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ। দিনশেষে কোম্পানিটির ১৩ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। টার্নওভার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল এডিএন টেলিকম, কোম্পানিটির ১৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১২ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে স্টার্ন্ডাড সিরামিক।

টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো- ব্র্যাক ব্যাংক, খুলনা পাওয়ার, নর্দার্ন জুট, স্কয়ার ফার্মা, বিকন ফার্মা, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড ও পাইনিয়র ইন্স্যুরেন্স।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া ২১৯টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৪৭টির, দর কমেছে ১৪৬টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ২৬টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় সিএসইতে ১৪ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দিনশেষে সিএসই’র সাধারণ মূল্য সূচক আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৭৫.১৬ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ৮০৬ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সিএসই’র সাধারণ মূল্যসূচক ৮ হাজার ২০৮.৪৫ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছিল। কিন্তু এর পরে টানা ৪ কার্যদিবসের পতনে সিএসই’র প্রধান এ সূচক কমেছে ৪০২.৩৯ পয়েন্ট।

উল্লেখ্য, গত ২ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার পুঁজিবাজার উন্নয়নে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের সাথে বৈঠক করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। এসময় বাজার উন্নয়নে ১২ ইস্যুতে অর্থমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছে স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ।

জেডএস

 

অর্থনীতি : আরও পড়ুন

আরও