ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৪

ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:৫৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮

print
ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার

মুদ্রানীতি ও খালেদা জিয়ার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে টানা বেশ কিছুদিন নিম্নমুখী প্রবণতায় ছিল পুঁজিবাজার। তবে রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে লেনদেন ও সূচকের মন্থরতা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার। বিনিয়োগকারীদের ক্রয় প্রবণতায় দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ৮৮.৯২ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে। এসময় ডিএসই’র সার্বিক মূল্যসূচক বেড়েছে ১২৮.৩২ পয়েন্ট।

এদিকে, বিনিয়োগকারীদের সক্রিয় অংশগ্রহণে রোববার দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক বেড়েছে ২৩৫.৭১ পয়েন্ট। দিনশেষে সিএসইর সার্বিক লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় বেড়েছে। ডিএসই ও সিএসইর বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, খালেদার রায় পরবর্তী সময়ে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক পরিবর্তন আসতে পারে- এমন শঙ্কা থেকে পুঁজিবাজারের লেনদেনে মন্দা ছিল। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণার পর রাজনৈতিক অঙ্গনে বড় কোনো পরিবর্তন না আসায় ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাজার।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একটি সিকিউরিটিজ হাউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকতা বলেন, রোববার বাজারের লেনদেনে খালেদা জিয়ার রায়ের কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি। যার ফলে বাজারের সূচক ও লেনদেন বেড়েছে।

তিনি জানান, আজ বাজারে সরকারি ও বেসরকারি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্রিয়তা ছিল। যার প্রভাবে প্রথম ঘণ্টা শেষেই বাজারের মূল্যসূচক ৬৩ পয়েন্ট বেড়েছিল। দিনশেষে সূচক ও লেনদেনের অংক ইতিবাচক অবস্থানে স্থিতি পেয়েছে।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ২৯৩টির বা ৮৮.৯২ শতাংশ, দর কমেছে ২৭টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১৪টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় ডিএসইতে ১৩ কোটি ২ লাখ ৩৯ হাজার ৭৭৯টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

টাকার অংকে এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৫৫ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এর আগের কার্যদিবসে (বৃহস্পতিবার) ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩০০ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ এক কার্যদিবসের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১৫৫ কোটি টাকা।

দিনশেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ১২৮.৩২ পয়েন্ট বেড়ে ৬০৯৩.৯৫ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। লেনদেন শেষে ডিএসইএস সূচক ২২.৮৩ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক ৩০.৩৪ পয়েন্ট বেড়েছে।
লেনদেন শেষে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স। এসময় কোম্পানিটির ২১ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। টার্নওভারে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, কোম্পানিটির ১৫ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১৫ কোটি ৫৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভারের তৃতীয় অবস্থানে ছিল স্কয়ার ফার্মা।
এছাড়াও টার্নওভার তালিকায় ছিল মুন্নু সিরামিক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ফার্মা এইড, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, কেয়া কসমেটিকস, গ্রামীণফোন ও সিটি ব্যাংক।

এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া ২৪৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ২২৩টির, দর কমেছে ১৪টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ৯টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৬৬ লাখ টাকার।

লেনদেন শেষে সিএসই’র প্রধান মূল্যসূচক সিএসইএক্স বেড়েছে ২৩৫.৭১ পয়েন্ট। এসময় সিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, কোম্পানিটির ১ কোটি ২৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

জেডএস/এএল

 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad