গেইলকে ছক্কা মারতে দেখেই টেনশন বাড়ছিল মাশরাফির

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮ | ১০ মাঘ ১৪২৪

বিপিএল ২০১৭

গেইলকে ছক্কা মারতে দেখেই টেনশন বাড়ছিল মাশরাফির

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:২০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৭

print
গেইলকে ছক্কা মারতে দেখেই টেনশন বাড়ছিল মাশরাফির

ছক্কার পর ছক্কা হাঁকিয়ে যাচ্ছেন ব্যাটসম্যান। আর ওইদিকে ডাগআউটে উল্লসিত না হয়ে উল্টো টেনশন বেড়ে যাচ্ছে দলের অধিনায়কের। শুক্রবার খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে হারলেই বাদ এমন ম্যাচের চিত্র এটি। ১৬৮ রানের লক্ষ্যে রীতিমত ছক্কার ঝড় তুলেছেন ক্রিস গেইল। আর তাকে ছক্কা মারতে দেখে টেনশন বেড়ে যাচ্ছিল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানালেন অধিনায়ক।

এদিন ম্যাচে ১৪টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন গেইল। তবে তার টর্নেডো ইনিংসের শুরুতে দারুণ টেনশনেই ছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি। ব্যাখ্যাটাও দেন অধিনায়ক, ‘ক্রিস গেইল যখন মারা শুরু করে তখন আরও টেনশন বেড়ে যায়, বিশেষ করে দ্রুত ২ উইকেট হারানোর পর। হয়তো গাজীর উইকেট তখন গুরুত্বপূর্ণ নয় কিন্তু ম্যাককালাম আউট হয়ে যাওয়ার পরে ও যখন মারছিল... অবশ্যই রান আসতে থাকলে ড্রেসিংরুম ঠাণ্ডা হতে থাকে। একই সময়ে নিরাপদ জায়গায় না যাওয়া পর্যন্ত চিন্তাটাও কাজ করে।’

আর টেনশন হবেই না কেন। এবার রংপুরের দলটি ব্যাট হাতে ধারাবাহিকতা দেখাতে পারেনি। উল্লেখ করার মতো এক রবি বোপারাই খেলেছে, তাও স্ট্রাইক রেট টি-টুয়েন্টি উপযোগী নয়। ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন এমন আছেন গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কিন্তু ঢাকার মাঠে সংগ্রামই করছেন ম্যাককালাম। তাই ২১ রানে ২ উইকেট হারানোর পর গেইল যখন ছক্কা হাঁকাচ্ছিলেন তখন কিছুটা ভয়েই ছিলেন মাশরাফি। এই বুঝি আউট হয়ে গেলেন গেইল! ভয়টার কারণই জানালেন অধিনায়ক, ‘বেশিরভাগ ম্যাচই তাদের দুই জনের (গেইল ও ম্যাককালাম) ওপর নির্ভর করছে। হয়তো রবি বোপারা স্ট্রাইক রোটেট করে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে কিন্তু বড় পার্থক্য গড়ে দিতে নির্ভর করা হয় তাদের দুই জনের ওপর।’

তবে অধিনায়ককে খুব বেশিক্ষণ টেনশনে রাখেননি গেইল। ১২৬ রানের দানবীয় ইনিংস খেলে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন ২৮ বল আগেই। তবে গেইল আউট হলে এই ম্যাচেই যে চাপে পরে যেতেন তাও স্বীকার করলেন মাশরাফি, ‘আমি মনে করি আজকে খুব ভাগ্যবান ছিলাম। কাউকে ছোট করা না, গেইল আউট হয়ে গেলে এই ম্যাচ খুব কঠিন হয়ে যেত। ২১ রানে ২ উইকেট পড়েছিল, ও যদি ৫০ রানের মধ্যেও আউট হত খুব কঠিন হয়ে যেত। ২০ ওভার পর্যন্ত ম্যাচ গেলে কি হত বলা যায় না।’

তবে শেষ পর্যন্ত জয় পেয়েছে রংপুর। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে দলটি। আর তা সম্ভব হয়েছে গেইলের কারণেই। তাই সতীর্থকে কৃতিত্ব দিতে ভোলেননি অধিনায়ক, ‘ক্রিস গেইলের দিনে সে ম্যাচ একাই জিতিয়ে দিতে পারে। সেটা আজকেও আবার সে প্রমাণ করেছে।’

আরটি/

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad