পশ্চিমবঙ্গের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০ | ২১ চৈত্র ১৪২৬

পশ্চিমবঙ্গের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:১১ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২০

পশ্চিমবঙ্গের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

করোনা-আতঙ্কের আবহে এবার রাজ্যের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গ। আজ শনিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জারিকৃত এক নির্দেশিকায় এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

নির্দেশিকায় আগামী ১৬ মার্চ (সোমবার) থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করা হয়েছে। স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ পরীক্ষাও। তবে উচ্চ মাধ্যমিকসহ সিবিএসই এবং আইএসই-র যে সমস্ত পরীক্ষা চলছে তা চলবে বলে এ নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে।

আগামী ৩০ মার্চ ফের পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত ঘোষণার কথা বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, নোভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু), জাতিসঙ্ঘ এবং কেন্দ্রীয় সরকার যে পরামর্শ দিয়েছে, তার ভিত্তিতেই রাজ্য সরকার স্কুল-মাদ্রাসা-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। করোনা ছড়িয়ে পড়া রুখতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে জনস্বার্থেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছে ওই নির্দেশিকায়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ প্রসঙ্গে বলেন, “চিন্তার কোনও কারণ নেই। এ রাজ্যে তেমন কোনও ঘটনা ঘটেনি। তবে, আমরা সব রকমের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি। সে কথা মাথায় রেখেইস্কুল-মাদ্রাসা-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখা হচ্ছে।”

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা-পরিস্থিতিতে এর আগে বিভিন্ন রাজ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দিল্লিতেও বন্ধ রাখা হয়েছে সমস্ত স্কুল-কলেজ। কলকাতার বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় বা খড়্গপুর আইআইটি-র মতো প্রতিষ্ঠানও বন্ধ। আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারও সেই পথে হাঁটল।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, “শিশুদের সুরক্ষার বিষয়টি আরও গুরুত্বপূর্ণ। স্যানিটাইজার বা টিস্যু দিলেও শিশুরা ঠিকমতো ব্যবহার করতে পারে না। অনেক সময়েই ওরা বুঝতে পারে না, ঠিক কী করতে হবে। তাই আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনা-পরিস্থিতির মোকাবিলায় রাজ্য সব রকম ভাবে প্রস্তুত। তিনি বলেন, “আমাদের রাজ্য সব রকম পরিস্থিতির মোকাবিলায় তৈরি। হাসপাতালগুলিতে আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি রাখা হচ্ছে। আগামী ৩০ মার্চ ফের আমরা বৈঠক করব। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।”

করোনা-পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যবাসীকে পরামর্শও দিয়েছেন। বলেছেন, “বেশি করে জল খান। ঘণ্টায় ঘণ্টায় হাত ধুতে হবে। অসুস্থবোধ করে ডাক্তার দেখান। আতঙ্কিত হবেন না।” একই সঙ্গে তিনি বলেন, “আমাদের অনেক বন্ধু দেশ রয়েছে। প্রতিবেশী দেশগুলিতে তো যাতায়াত বন্ধ করতে পারিনা। নেপাল, ভুটান বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সীমান্ত রয়েছে। আমরা সব দিকে নজর রাখছি। যা যা করার করছি।” সূত্র: আনন্দবাজার।

এমএফ/

 

আন্তর্জাতিক: আরও পড়ুন

আরও