৬ মাসে আসামের সব সরকারি মাদরাসা হবে স্কুল

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬

৬ মাসে আসামের সব সরকারি মাদরাসা হবে স্কুল

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:২৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০

৬ মাসে আসামের সব সরকারি মাদরাসা হবে স্কুল

বিজেপি নেতৃত্বাধীন আসামের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা

আসামে সমস্ত সরকারি মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোল বন্ধ করে দিয়ে আগামী ৬ মাসের মধ্যে সেগুলোকে স্কুলে পরিণত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যটির বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার।

এই সিদ্ধান্তের সমর্থনে রাজ্যটির শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, “ধর্ম, আধ্যাত্ম এবং আরবির মতো ভাষার শিক্ষা প্রদান করা ধর্মনিরপেক্ষ সরকারের কাজ নয়”।

২০১৭ সালে মাদ্রাসা এবং সংস্কৃত টোল বোর্ড ভেঙে দিয়ে বোর্ডের অধীন প্রতিষ্ঠানগুলোকে মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধিভুক্ত করেছিল আসামের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার, এবার সেগুলোকে বন্ধের পথে হাটল তারা, বলছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

হিমন্ত বিশ্ব শর্মা এনডিটিভিকে বলেন, “আসামে ১২০০ মাদ্রাসা এবং ২০০ সংস্কৃত টোল আছে, কিন্তু এসব পরিচালনায় তাদের কোনো স্বতন্ত্র বোর্ড নেই। এ সকল প্রতিষ্ঠানে পড়ুয়ারা মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক স্কুলের সমমানের সার্টিফিকেট পান। এ কারণে অনেক সমস্যা হচ্ছে। তাই সমস্ত মাদ্রাসা এবং সংস্কৃত টোল বোর্ডকে সাধারণ স্কুলে পরিণত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার”।

এছাড়া, রাজ্যটির প্রায় দুই হাজার বেসরকারি মাদ্রাসার ওপরও নজরদারি চালাতে কঠোর নিয়ম তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

আসামের শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “যেহেতু রাজ্য সরকার ধর্মনিরপেক্ষ প্রতিষ্ঠান, ফলে তারা ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালাতে পারে না। বেসরকারি মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোল চলতে পারে, তবে নিয়মিতভাবে সেখানে শিক্ষা চলছে কিনা, তা নজরদারি করতে আমরা শীঘ্রই নতুন আইন আনছি”।

শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, অভিভাবকদের সিদ্ধান্তের জন্য শিশুরা যাতে প্রকৃত শিক্ষা থেকে বঞ্ছিত না হয়, তার জন্য আমাদের এই পদক্ষেপ। তার কথায়, “১৪ বছরের নিচে শিশুরা সেখানে যায়, তাদের অভিভাবকরাই ঠিক করেন, শিশুদের কোথায় ভর্তি করা হবে। অতিরিক্ত ধর্মীয় শিক্ষার কারণে বাচ্চারা প্রকৃত শিক্ষা থেকে বঞ্ছিত হোক, আমরা তা চাই না। আমরা একটি নির্দেশিকা আনব, যাতে নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম থাকে এবং ধর্মীয় শিক্ষার সঙ্গে যাতে স্বাভাবিক শিক্ষাও দেওয়া হয়”।

এমএফ/

 

আন্তর্জাতিক: আরও পড়ুন

আরও