পোশাকের বাধ্যবাধকতার প্রতিবাদে দাবা টুর্নামেন্ট বয়কট ভারতীয় গ্র্যান্ডমাস্টারের

ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫

পোশাকের বাধ্যবাধকতার প্রতিবাদে দাবা টুর্নামেন্ট বয়কট ভারতীয় গ্র্যান্ডমাস্টারের

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৫০ অপরাহ্ণ, জুন ১৩, ২০১৮

print
পোশাকের বাধ্যবাধকতার প্রতিবাদে দাবা টুর্নামেন্ট বয়কট ভারতীয় গ্র্যান্ডমাস্টারের

মাথায় স্কার্ফ পরা বাধ্যতামূলক করায় ইরানের আসন্ন চ্যাম্পিয়নশিপ টুর্নামেন্ট বয়কট করেছেন ভারতের অন্যতম তারকা দাবাড়ু।

সাবেক বিশ্ব জুনিয়র গার্লস চ্যাম্পিয়ন সৌম্য স্বামিনাথন বলেন, আগামী মাসে ইরানে অনুষ্ঠিতব্য এশিয়ান ন্যাশনস চেস কাপের পোশাক পরিচ্ছদের বাধ্যবাধকতা তার মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ণ করছে।

গ্র্যান্ডমাস্টার দাবাড়ু বলেন, 'আমার কাছে মাথায় স্কার্ফ পরার বাধ্যতামূলক করে তৈরি ইরানের আইন তার মত প্রকাশের স্বাধীনতা, চিন্তার স্বাধীনতা ও বিবেকবোধ, এবং ধর্মসহ বিভিন্ন মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ণ করেছে,'

'বর্তমান পরিস্থিতিতে মনে হচ্ছে আমার অধিকার রক্ষা করার একমাত্র উপায় হচ্ছে ইরানে না যাওয়া,' তার ফেসবুক ওয়ালে লেখেন ২৯ বছর বয়সী এই দাবাড়ু।

ইরানের হামাদানে ২৬ জুলাই থেকে ৪ অগস্ট পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য এই প্রতিযোগিতায় প্রত্যেক দাবাড়ুকে বাধ্যতামূলকভাবে মাথায় স্কার্ফ পরতে বলা হয়েছিল।

জুনিয়র পর্যায়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া সৌম্য এরই প্রতিবাদে প্রতিযোগিতায় অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ক্রীড়াবিদদের ক্ষেত্রে পোশাকের বিষয়ে কোনও ধর্মীয়  বাধ্যবাধকতার জায়গা নেই বলে মনে করেন সৌম্য।

তার মতে, 'আয়োজকরা যদি আমাদের জাতীয় পোশাক পরতে বলেন, তা তবু মানা যায়। কিন্তু, খেলাধূলার জগতে জোর করে ধর্মীয় পোশাক-বিধি চাপানো যায় না। দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আসন্ন এশিয়ান নেশনস কাপ চেজ চ্যাম্পিয়নশিপের ভারতীয় মহিলা দল থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছি। জোর করে স্কার্ফ বা বোরখা পরতে পারব না।'

'এত বড় প্রতিযোগিতায় খেলোয়াড়দের সুযোগ-সুবিধার দিকে লক্ষ্য না রাখায় আমি খুবই হতাশ। যদিও দেশের প্রতিনিধিত্ব করা আমার কাছে বিশাল সম্মানের। আমরা, ক্রীড়াবিদরা অনেক স্বার্থত্যাগ করেই থাকি। সবসময় খেলাকে অগ্রাধিকার দিই। কিন্তু, কিছু ব্যাপারে সমঝোতা করা যায় না,' যোগ করেন তিনি।

এমআর/

 
.




আলোচিত সংবাদ