চিকিৎসাধীন ১৬ জনের পরিচয় পেয়েছি: ইউএস-বাংলা

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫

চিকিৎসাধীন ১৬ জনের পরিচয় পেয়েছি: ইউএস-বাংলা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:৫৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১২, ২০১৮

print
চিকিৎসাধীন ১৬ জনের পরিচয় পেয়েছি: ইউএস-বাংলা

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার বিধ্বস্ত বিমান থেকে উদ্ধার ১৬ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ইউএস-বাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফ সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে সাংবাদিকদের একথা জানান।

তিনি বলেন, ‘যাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ১৬ জন নেপালের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানতে পেরেছি। আমরা তাদের নামগুলো নিশ্চিত হতে পেরেছি।’

এই ১৬ জন হলেন- ইমরানা কবির হাসি, পিঞ্জি ধামী, সামিরা বেজাংকার, কবির হোসেন, মেহেদি হাসান অমিও, রেজওয়ানা আব্দুল্লাহ, সোহারনা সাইয়িদা কামরুনন্নাহার, শাহরিন আহমেদ, মো. শাহিন ব্যাপারী, কিশোর চিপাতী, হারি প্রসাদ সুবেদী, দায়রাম তামরাকার, কেশব পান্ডে, বাসন্ত বহুড়া, আশিশ রনজিত ও বিনোদরাজ পডুয়াল।

বিমান বিধ্বস্তের কারণ প্রসঙ্গে ইউএস-বাংলার সিইও বলেন, ‘বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পূর্বেই ক্যাপ্টেন আবিদের সঙ্গে কাঠমান্ডু (ত্রিভুবন) এয়ারপোর্টের এটিসির সঙ্গে যে কথপোকথন হয় সেটা ইউটিউবে দেখা যাচ্ছে।’

‘সেখান থেকে আমাদের ক্যাপ্টেনকে ভুল তথ্য দেয়া হয়েছিল। যার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আমাদের কাছে মনে হচ্ছে। আমরা এটা ইনভেস্টিগেট (তদন্ত) করছি’ যোগ করেন তিনি।

ইমরান আসিফ বলেন, ‘আমাদের উড়োজাহাজের কোনো যান্ত্রিক ক্রুটি ছিল না। মূলত পাইলটকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রানওয়ের কথা বলা হয়েছে। ভুল তথ্য পেয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়। চার ক্রুসহ ৭১ জন আরোহীর অধিকাংশই নিহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিমানটি সোমবার ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হয়।

নেপাল সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, আরোহীদের ৫০ জন নিহত হয়েছেন। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ইউএস-বাংলার একটি সূত্র পরিবর্তন ডটকমকে জানিয়েছে, বিধ্বস্ত বিমানে ৩৩ জন নেপালী, ৩২ বাংলাদেশী, একজন মালদ্বীপের এবং এক চীনা নাগরিক ছিলেন। যাত্রীদের মধ্যে দুজন শিশু ছিল।

এস২-এডিইউ মডেলের ৭৮ আসনের টুইন টার্বো প্রোপ বিমানটি ঢাকা থেকে কাঠমান্ডুতে পৌঁছানোর পর অবতরণের সময় পাশে বিধ্বস্ত হয়। বিমানটিতে ৬৭ জন যাত্রী এবং চারজন ক্রু ছিলেন।

টিএটি/এমএসআই

আরো পড়ুন...
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, বহু হতাহতের আশঙ্কা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা ফ্লাইটে আগুন
যান্ত্রিক ক্রুটিতেই ইউএস বাংলা বিমান দুর্ঘটনা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৭
বিধ্বস্ত বিমানের ৩৮ আরোহী নিহত: এএফপি
প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্তের মুহূর্ত
আকাশে উড়ে বাবার সঙ্গে না ফেরার দেশে প্রিয়ন্ময়ী
বাবার খোঁজে ইউএস-বাংলা অফিসে শাওন
ফ্লাইটের চাপই কি নেপালে বিমান দুর্ঘটনার কারণ?

 
.




আলোচিত সংবাদ