ভারত প্রসঙ্গে পাকিস্তানে ওআইসির বৈঠক ডাকল সৌদি

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৬

ভারত প্রসঙ্গে পাকিস্তানে ওআইসির বৈঠক ডাকল সৌদি

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:০৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯

ভারত প্রসঙ্গে পাকিস্তানে ওআইসির বৈঠক ডাকল সৌদি

ফাইল ছবি

ভারতের দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে এবার জম্মু-কাশ্মীর ও বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন পাসের পর ভারতীয় মুসলিমদের উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা ওআইসি’র বিশেষ বৈঠকের আহবান করেছে সৌদি আরব। মুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্রগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা পাকিস্তানে অনুষ্ঠেয় এ বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন।

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, ২৬ ডিসেম্বর ইসলামাবাদ সফরে গিয়েছিলেন সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুবরাজ ফয়সাল বিন ফারহান আলে-সউদ। সেখানে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির সঙ্গে দেখা করে তিনি এ বৈঠকের কথা নিশ্চিত করে গেছেন।

আগামী এপ্রিল মাসে এ বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে সূত্রের বরাতে জানিয়েছে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও পাকিস্তান টুডে।

অধিকৃত কাশ্মীর এবং বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিলের পর ভারতীয় মুসলমানদের বর্তমান পরিস্থিতি বৈঠকের অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত বিষয় হবে বলে জানানো হয়েছে। ওআইসির এ বৈঠককে নিজেদের কূটনীতিক বিজয় হিসেবে দেখছে পাকিস্তান।

যুবরাজ ফয়সাল বিন ফারহান এবং শাহ মেহমুদ কুরেশির বৈঠক নিয়ে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়েছে, ‘যুবরাজের সঙ্গে বৈঠক চলাকালীন জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন, জাতীয় নাগরিক পঞ্জিসহ সাম্প্রতিককালে ভারত সরকারের নেওয়া একাধিক সিদ্ধান্তের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন শাহ মেহমুদ কুরেশি। কীভাবে বেছে বেছে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, বিশেষ করে মুসলিমদের ভারতে নিশানা করা হচ্ছে, তা-ও তুলে ধরা হয় এ বৈঠকে।’

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘কাশ্মীরের ব্যাপারে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন(ওআইসি)-র ভূমিকা নিয়েও আলোচনা হয়েছে দু’পক্ষের মধ্যে। ভারতে সংখ্যালঘুদের পরিস্থিতির দিকে নজর রয়েছে ওআইসি-র জেনারেল সেক্রেট্যারিয়টের। নাগরিকত্বের অধিকার এবং বাবরি মসজিদ মামলাসহ সাম্প্রতিক ঘটনায় যথেষ্ট উদ্বিগ্ন তারা। ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিম এবং তাদের পবিত্র স্থানগুলির নিরাপত্তা রক্ষায় যে তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, তা ফের আশ্বস্ত করেছে ওআইসি।’

চলতি মাসের শুরুতে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত কুয়ালালামপুর সামিটের পর ওআইসির এ বিশেষ বৈঠক আহ্বান করা হল। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সৌদি আরবের চাপে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠেয় ‘কুয়ালালামপুর সামিটে’ অংশ নেননি বলে গুঞ্জন উঠেছিল।

কুয়ালালামপুর সামিটকে সৌদি সরকার শুরু থেকেই ভালোভাবে গ্রহণ করেনি বলে জানা গেছে। এই সামিট মুসলিম বিশ্বে রিয়াদের প্রভাব আরও হ্রাস করবে বলে সৌদি আরব মনে করছে। সূত্র: আনন্দবাজার, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন, পাকিস্তান টুডে।

এমএফ/

 

আন্তর্জাতিক: আরও পড়ুন

আরও