পুলিশি ব্যস্ততার মধ্যেও দেওয়ান লালনের স্বপ্ন জুড়ে আছে গান  

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

পুলিশি ব্যস্ততার মধ্যেও দেওয়ান লালনের স্বপ্ন জুড়ে আছে গান  

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৭

print
পুলিশি ব্যস্ততার মধ্যেও দেওয়ান লালনের স্বপ্ন জুড়ে আছে গান  

ঠাকুরগাঁও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেওয়ান লালন আহমেদ পুলিশের দায়িত্ব পালন করার পাশাপশি শিল্প চর্চা করেন। গান লিখছেন নিয়মিতই।   ‘তোমার একটু ছায়া খুঁজি, যখনি এ দু চোখ বুজি, ভাবনা জুড়ে ঝড় তোলো মাগো’—সম্প্রতি তার লেখা ‘মা’ শিরোনামের এমনই একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ফিডব্যাক ব্যান্ডের ভোকাল লুমিন।

.

গানটির সুর করেছেন সাজেদ ফাতেমী। সঙ্গীত আয়োজন করেছেন জে আর সুমন। ম্যাক্সটিউন স্টুডিও তে গানটি ধারন করা হয় । এর আগেও আরও দেওয়ান লালনের লেখা আরও দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন লুমিন। ওই গান দুটিরও সুর করেন সাজেদ ফাতেমী ও সঙ্গীত আয়োজন করেন জে আর সুমন। ওই গান দুটির একটি ছিলো  ১৫ আগস্টের শোক দিন নিয়ে লেখা ‘কাঁদো বাঙালি আজ কাঁদো সবাই’ ও একাত্তরের পঁচিশে মার্চের কালো রাতে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে পুলিশের প্রথম প্রতিরোধ নিয়ে গান ‘পচিশে মার্চ’।

লালন জানান- ২০১৩ সালে প্রথম গান লিখেন -বাবা কে নিয়ে। গানটির সুরকার ছিলেন রাজীব। সঙ্গীতায়জন করার পাশাপাশি গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছিলেন শীষ।

দেওয়ান লালন আহমেদ তার সঙ্গীত চর্চা প্রসঙ্গে বুধবার বিকেলে পরিবর্তন ডটকমকে বলেন,‘ যে কাজটির প্রতি ভালোবাসা থাকে সেটা হাজারও ব্যস্ততার মধ্যেও সময় বের করে করা যায়। আমি তাই করছি। গানকে অনেক ভালোবাসি। ব্যস্ততার মধ্যেও নিয়মিত আরও ভালো গান লিখতে চাই সামনে।’

দেওয়ান লালন আরও বলেন, ‘মা, বাবা, মুক্তিযুদ্ধ’, ‘বঙ্গবন্ধু’ এগুলো আমার গানের বিষয় হিসেবে এসেছে। মন-মননে আমি মুক্তিযুদ্ধ ও প্রগতিশীলতাকে ধারণ করি। তাই যুদ্ধের সময়ে পুলিশের সাহসী ভূমিকা সংগীতের রাজ্যেও জুড়ে থাকুক সে স্বপ্ন দেখেছি।তরুণ প্রজন্মকে গানের মাধ্যমেই দেশপ্রেমে আরও উদ্ধুদ্ধ করতে চাই। ’

ফিডব্যাক ব্যান্ড দলের ভোকাল লুমিন। সাধারণত ব্যান্ডের বাইরে এককভাবে গান করেন না তিনি। এবার ব্যান্ডের বাইরে গিয়ে ‘পঁচিশে মার্চ’, ‘কাঁদো বাঙালি আজ কাঁদো’, ও ‘মা’ শিরোনামে তিনটি গানে কণ্ঠ দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন,‘ লালন আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধু। পুলিশে কর্মরত থাকলেও থিয়েটার করা , বই লেখা, গান লেখা তার দীর্ঘদিনের সাংস্কৃতিক চর্চা। বন্ধুর অনুরোধ ফেলতে পারিনি।’

লেখক হিসেবে দেওয়ান লালনের পরিচিতি নতুন নয়। চলতি বছর অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশ হয় ‘পুলিশের খেরোখাতা’। ২০১৬ সালে বের হয় ‘বাবার চোখে ‍মুক্তিযুদ্ধ’। বই দুটি পাঠকমহলে সাড়া ফেলে। এছাড়া তার লেখা প্রকাশ হয়েছে বিভিন্ন মাধ্যমে।

এএ/

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad