ভয়াবহ তথ্য দিলেন ফেসবুকের প্রথম অর্থদাতা!

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫

ভয়াবহ তথ্য দিলেন ফেসবুকের প্রথম অর্থদাতা!

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:৪৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
ভয়াবহ তথ্য দিলেন ফেসবুকের প্রথম অর্থদাতা!

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগামাধ্যম ফেসবুক মার্ক জুকারবার্গের হাত ধরে যে এসেছে তা সবারই জানা। তবে শুরুর দিকে মার্কের সঙ্গে আরও কয়েকজন ব্যক্তি এতে জড়িত ছিলেন। তার মধ্যে অন্যতম রজার ম্যাকনামি। ইয়াহু ম্যাসেঞ্জার যুগের পর ফেসবুক যে সামাজিক যোগাযোগের প্ল্যাটফর্মে এতটা জনপ্রিয়তা পাবে তা সম্ভবত আগেই বুঝেছিলেন এই ব্যক্তি। আর তাই তিনি মার্ক জুকারবার্গকে সাবধান করেছিলেন ফেসবুকের ভবিষ্যত ভয়াবহতা সম্পর্কে।

মার্ক জুকারবার্গ সেফবুক প্রতিষ্ঠাতা হলেও ম্যাকনামি ছিলেন তার প্রধান পরামর্শক। অর্থ ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগের প্ল্যাটফর্মটি সম্পর্কে মার্ককে তিনি নানা পরামর্শও দিয়েছিলেন। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে ম্যাকনামি দাবি করেন, ফেসবুক যে ভবিষ্যতে মানুষের জন্য কতটা ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনবে তা আগেই মার্ককে জানিয়েছিলেন তিনি।

তিনি দাবি করেন, সেই ভয়াবহতার কিছুটা লক্ষণ এখনই দেখা গেলেও সে সম্পর্কে উদাসিন বিশ্বের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। কিন্তু তাদের সামাজিক বাস্তব যোগাযোগ এবং মনস্তাত্ত্বিক দিকে যে বিরূপ প্রভাব ফেলছে তার ভয়াবহতা সুদূর প্রসারী বলেও জানান ম্যাকনামি।

ফেসবুক থেকে সরে এসে বর্তমানে তিনি এলিভেশন পার্টনারস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে রয়েছেন। সংস্থাটি মিডিয়া এবং প্রযুক্তিভিত্তিক ব্যবসায় অর্থলগ্নি করে থাকে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএস’এর অনুষ্ঠানে রজার বলেন, ফেসবুক বর্তমানে যে পথে হাঁটছে তা ভয়াবহ ফল বয়ে আনতে যাচ্ছে। তিনি দাবি করেন, ফেসবুক বর্তমানে তার ব্যবহারকারীদের চাইতে ব্যবসায়ীদের বেশি অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এবং তার ফল বইতে হচ্ছে ব্যবহারকারীদেরই।

তিনি বলেন, এই কৌশলের ফলে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা না চাইলেও পণ্যের প্রসারে ব্যবহার হচ্ছেন। ফলে সবার অজান্তেই সমাজে এর প্রভাব পড়ছে।

এটা তো হচ্ছে ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে ভয়াবহতার বিষয়। ম্যাকনামি এরপর আসেন সামাজিক প্রভাবের বিষয়ে। তিনি বলেন, জনপ্রিয়তার কারণে ব্যবহারকারীরা যে কোনো গণমাধ্যমের চাইতেও ফেসবুককে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। ফলে ইচ্ছায় হোক কিংবা অনিচ্ছায়, ফেসবুকে পোস্ট হওয়া যে কোনো খবরে সরাসরি প্রতিক্রিয়া দেখানোর সুযোগ পাচ্ছেন ব্যবহারকারীরা।

ফলে বাস্তব তথ্যের মতো মিথ্যে সংবাদও সমান গুরুত্ব পাচ্ছে ফেসবুকে। ফলে এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে ব্যবহার করে সমাজে বড় ধরনের গণ্ডগোল কিংবা অরাজকতা সৃষ্টি করা এখন কোনো ব্যাপারই না। ফেসবুককে অসৎ উদ্দেশ্যে কাজে লাগিয়ে মানুষের মূল্যবোধে যে কোনো সময় আঘাত হানতে পারে কুচক্রী মহল।

ফেসবুককে তাই আরও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা ভেবে কাজ করার পরামর্শ দেন রজার ম্যাকনামি।

ভিডিও...

কেবিএ

 
.



আলোচিত সংবাদ