এক প্যাভিলিয়নেই মিলছে প্রয়োজনীয় সব পণ্য

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ | ৬ বৈশাখ ১৪২৫

এক প্যাভিলিয়নেই মিলছে প্রয়োজনীয় সব পণ্য

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
এক প্যাভিলিয়নেই মিলছে প্রয়োজনীয় সব পণ্য

২৩তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে বাহারি দেশিয় পণ্যের পসরা সাজিয়েছে এসএমই প্যাভিলিয়ন। কর্তৃপক্ষ বলছেন, এক ছাদের নিচেই প্রয়োজনীয় সব পাবেন ক্রেতারা।

তীব্র শীতকে উপেক্ষা করেও ক্রেতারা মেলায় কেনাকাটা করতে আসছেন। আর সেই ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে এসএমই প্যাভিলিয়ন বাহারি পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছে।

প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখা যায়, হাতের তৈরি আকর্ষণীয় বিভিন্ন পোশাক, হ্যান্ডিক্রাফট, লেদার পণ্য, জুট পণ্য, প্লাস্টিক পণ্য, রংপুরের ঐতিহ্যবাহী শতরঞ্জী, জামদানি ও মসলিন শাড়ি, বিয়ের শাড়ি, বুটিক পণ্য, নারিকেলের খুলির তৈরি বিভিন্ন সামগ্রী পাওয়া যাচ্ছে এখানে।

আর আবহাওয়ার সঙ্গে সামঞ্জস্যা রেখে প্যাভিলিয়নটির ১৫নং স্টলে মিলছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য নকশি কাঁথা।

এদিকে খাবারের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের আচার, খাঁটি মধু ও গাওয়া ঘিসহ দেশিয় নানান খাবারও পাওয়া যাচ্ছে প্যাভিলিয়নের বিভিন্ন স্টলে। যা দেশি উদ্যোক্তাদের তৈরি ও নিজস্ব প্রতিষ্ঠানের বলে জানিয়েছে এসএমই ফাউন্ডেশন।

ফাউন্ডেশনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক ফাহিম বিন আসমাত বলেন, নিজস্ব পদ্ধতি ও উপায়ে তৈরি হওয়ায় এই প্যাভিলিয়নে পণ্যের গুণগত মান যেমন ভালো তেমনি টেকসইও বটে।

এখানে একসঙ্গে এতো পণ্যের সমাহার দেখে মুগ্ধ হচ্ছেন ক্রেতা দর্শনার্থীরাও।

হঠাৎ বেড়ে যাওয়া শীতে চাদর ও মাফলার কিনেছেন আরমান হোসেন। তিনি বলেন, এখানকার চাদরগুলোতে নতুনত্ব আছে। তার কেনা চাদরটি দেখিয়ে বললেন, এটা অনেকটা জামদানি স্টাইলের। এমন ধরনের চাদর আমার চোখে এই প্রথম পড়েছে, তাই কিনে ফেললাম।

নারীদের বিভিন্ন অলঙ্কারও মিলছে এখানে। তাই লক্ষ্য করা গেলো নারী-পুরুষের সমান ভিড়।

এই প্যাভিলিয়নে মোট ২২টি স্টল রয়েছে। যেখানে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা তাদের উৎপাদিত পণ্যের প্রদর্শন করছেন। অলঙ্কারে মধ্যে রয়েছে গলার হার, চুড়ি, কানের গহনা, নাকের গহনাসহ নারীদের সাজতে যা প্রয়োজন। এছাড়া পার্স, বিভিন্ন শো-পিস, টিস্যু বক্স, ফুলদানি, ওয়ালমেট, ফটোফ্রেমসহ নানা ধরনের পণ্য সামগ্রী। আছে সিকা, ঝুলানো ফুলদানি, ফুলের টব, পুতুলসহ বাচ্চাদের বাহারি খেলনা সামগ্রী।

দেশিয় শিল্প, সংস্কৃতির ও ঐতিহ্যের নিপুণ কারুকাজ ফুটে উঠেছে বাহারি রঙ ও নকশার মসলিন, সুতি, তাঁত কাপড়ের প্রতিটি পোশাকে। বিভিন্ন প্রিন্ট, সুই-সুতার কাজ, অ্যামব্রয়ডারি, লেসসহ বিভিন্ন হাতের কাজে নতুনত্ব পেয়েছে প্রতিটি পোশাকে। শাড়ি, পাঞ্জাবি, সালোয়ার কামিজ, কুর্তি, শার্ট, ছোটদের পোশাক, ওড়না, কাপ্তানসহ উদ্যোক্তাদের সরাসরি নিজস্ব কারখানা থেকে তৈরি এ পোশাক পাওয়া যাবে এসএমই প্যাভিলিয়নে।

এসএমই ফাউন্ডেশনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক জানান, উৎপাদনকারী নিজেরাই তাদের স্টলে পণ্য নিয়ে এসেছেন। এসব পণ্যর গুণগত মান অনেক ভালো।

দেশি পণ্য কিনে এসব উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে দর্শনার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

কেএইচ/এসবি

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad