কিশোরীকে গণধর্ষণের দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০ | ২১ চৈত্র ১৪২৬

কিশোরীকে গণধর্ষণের দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন

ঠাকুরগাও প্রতিনিধি ৮:২২ অপরাহ্ণ, মার্চ ১২, ২০২০

কিশোরীকে গণধর্ষণের দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন

ঠাকুরগাওয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অপরাধে তিন ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে ১ লক্ষ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ গোলাম ফারুক এ রায় প্রদান করেন।

একই সঙ্গে আদালত অপহরণের দায়ে প্রত্যেককে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন।

দণ্ডিত আসামিরা হলেন— ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের মলিফত হোসেনের ছেলে মকিম উদ্দিন (৪৩), রঘুনাথপুর গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে সুমন (৩৩) ও দৌলতপুর গ্রামের মকিম উদ্দিনের ছেলে আব্দুল মালেক ওরফে সানু (৩২)।

মামলার অপর আসামি সখিনা বেগম মামলা চলা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করায় তাকে এই মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। তিনি পীরগঞ্জ উপজেলার জগথা গ্রামের আবুল হোসেনে স্ত্রী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে দণ্ডিত আসামি মকিম উদ্দিন রানীশংকৈল উপজেলার গোগর চৌরাস্তা এলাকার রিকশা চালক মনতাজ আলী সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে এমন সংবাদ দিয়ে তার বাসা হতে নাবালিকা কন্যাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। সেই দিন রাতে পীরগঞ্জ উপজেলার জগথা এলাকায় জনৈকা সখিনা বেগমের বাসায় নিয়ে গিয়ে আসামিরা মেয়েটিকে দুইদিন পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে ২৬ সেপ্টেম্বর রানীশংকৈল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ ভিকটিকমকে উদ্ধার করে এবং আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।

তদন্ত শেষে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি ওই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফরহাদ হোসেন দণ্ডিত আসামিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

এসবি

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও