আদালতে বিশৃঙ্খলা করে রায় নেয়া যাবে না: নানক

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০ | ১১ মাঘ ১৪২৬

আদালতে বিশৃঙ্খলা করে রায় নেয়া যাবে না: নানক

নীলফামারী প্রতিনিধি ৯:০০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৯

আদালতে বিশৃঙ্খলা করে রায় নেয়া যাবে না: নানক

আদালতে বিশৃঙ্খলা ও জোর করে রায় নেয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

তিনি বলেন, ‘এর মাধ্যমে বিএনপির পুরনো চেহারা আবারো দেখতে পেয়েছেন দেশবাসী।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

নানক বলেন, ‘দুর্নীতির অপরাধে আদালত সাজা দিয়েছেন খালেদা জিয়ার। সে জেল ভোগ করতে হবে তাকে। আদালতকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আদালতের বিরুদ্ধে গিয়ে তারা গাড়ি ভাঙচুর করছে। এটাই বিএনপির রাজনীতি।’

শহরের প্রধান শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের উদ্বোধন করে প্রেসিডিয়াম সদস্য রশেম চন্দ্র সেন।

এতে নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, নারী সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম, বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক উপস্থিত ছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে সম্মেলন সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হক।

জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে শুরু হওয়া সম্মেলনের প্রথম পর্বে প্রয়াত নেতাদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

বিএনপি-জামায়াত যাতে আওয়ামী লীগের প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বর্তমান কমিটিতে থাকা অনুপ্রবেশকারীদের বের করে দেয়ার নির্দেশ দেন নানক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর বলেন, তৃণমুল কর্মীরাই আওয়ামী লীগের প্রাণ। তাদের কারণে আজ দল শক্তিশালী এবং সংগঠিত।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নের উচ্চ শিখরে নিয়ে গেছেন। মঙ্গা হারিয়ে গেছে। অর্থনৈতিক সুদৃঢ় হয়েছে এখানকার মানুষদের।

সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে দেওয়ান কামাল আহমেদকে সভাপতি ও এ্যাডভোকেট  মমতাজুল হককে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করেন জাহাঙ্গীর কবির নানক।

নতুন এই কমিটিতে এক নম্বর সদস্য হিসেবে রয়েছেন সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর।

এনিয়ে দেওয়ান কামাল আহমেদ ও মমতাজুল হক দ্বিতীয় মেয়াদে জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্ব পেলেন।

এইচআর

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও