সবজি চাষে পাল্টে গেছে ফুলগাছ গ্রামের চিত্র (ভিডিও)

ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫

সবজি চাষে পাল্টে গেছে ফুলগাছ গ্রামের চিত্র (ভিডিও)

আরিফুর রশীদ, লালমনিরহাট ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৮

print

লালমনিরহাট সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী গ্রাম ফুলগাছ। শত শত কৃষি পরিবারের বসবাস এ গ্রামে। এক সময়ের অস্বচ্ছল গ্রামটির চিত্র পাল্টে গেছে সবজি চাষে। গ্রামটি পরিণত হয়েছে আদর্শ গ্রামে।

ফুলগাছ গ্রামের সবজি চাষী কৃষক মোবারক হোসেন জানান, শুধুমাত্র ৩০ শতাংশ জমিতে বেগুন চাষ করে ইতোমধ্যে প্রায় এক লাখ টাকা উপার্জন করেছেন তিনি।

একই জমিতে বেগুনের পাশাপাশি অন্যন্য শাক সবজি চাষ করে পরিবারের চাহিদা মেটানোর কথা জানান তিনি।

এলাকায় মোবারক হোসেনর মতই শত শত কৃষক সবজি চাষ করেই গ্রামটির চিত্র পাল্টে দিয়েছে।

সবজি চাষী আসাদুল মিয়া, নুর ইসলাম ও জাফর উদ্দিন জানান, কয়েক বছর আগেও সীমান্তবর্তী এই গ্রামটিতে ছিল অভাব আর অনটন। অস্বচ্ছলতার জীবন যাপনে অতিষ্ট হয়ে উঠেছিল তাদের সংসার। এখন আর তাদের মাঝে নেই হাহাকার, অস্বচ্ছলতা। শুধু সবজি চাষই তাদের জীবনমানের পরিবর্তন করেছে। তাদের গ্রামটির কেউ বসে থাকেন না। কৃষক-কৃষাণীর পাশাপাশি তাদের সন্তানরাও পড়াশোনার পাশাপাশি সবজি চাষে পারদর্শী হয়ে উঠেছে। বসতভিটার আশপাশে কোথাও ফেলে রাখছেন না একটুকরো জমি। সব স্থানে ফলানো হচ্ছে নানা রকম সবজি।

সরেজমিনে দেখা গেছে, গ্রামটিতে বেগুন, মুলা, ঢেড়স, বরবটি, সিম, লাউ, করলাসহ আবাদ হচ্ছে সব ধরনের সবজি। সারা বছরই কোনো না কোনো শাক-সবজি চাষাবাদ করছেন গ্রামের মানুষ। শাক-সবজি উৎপাদনের পাশাপাশি তারা উৎপাদন করছেন শাক-সবজির বীজও। এ গ্রামে উৎপাদিত শাক-সবজি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে পাঠানো হয় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে।

কৃষকরা জানান, সরকারি সহযোগিতা পেলে আরো বেশি বেশি সবজি চাষ করে শাক-সবজির চাহিদা মেটাতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবেন তারা।

ফুলগাছ গ্রামে সারা বছর সবজি চাষ করে অনেকের স্বচ্ছলতার কথা জানিয়ে সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এনামূল হক এ গ্রামে সব রকম সরকারি সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

এআর/এসবি

 
.




আলোচিত সংবাদ