সাত সকালে সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল ২০২০ | ১৮ চৈত্র ১৪২৬

সাত সকালে সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ

জেলা প্রতিনিধি ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

সাত সকালে সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ

দেশের বিভিন্ন স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় রোববার সকালে তিনজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

তাদের মধ্যে সাতক্ষীরায় পরিবহনের চাপায় এক ট্রলিচালক, নোয়াখালীতে বাসচাপায় এক শ্রমিক এবং নাটোরের সিংড়ায় মোটরসাইকেল চালক শিক্ষক রয়েছেন।

আমাদের সাতক্ষীরা, নোয়াখালী ও নাটোর জেলা প্রতিনিধির পাঠানো সংবাদের জানা গেছে:  

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা-যশোর সড়কে পরিবহনের চাপায় ট্রলিচালক কামরুল ইসলাম (২৬) ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন।

রোববার সকালে সদরের ছয়ঘরিয়া নামকস্থানে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত ট্রলিচালক সদর উপজেলার ইন্দিরা গ্রামের বাসিন্দা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কামরুল ইসলাম ট্রলি চালিয়ে যাচ্ছিলেন এ সময় পেছন দিক থেকে একটি পরিবহন তাকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলে তিনি নিহত হন।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান পরিবর্তন ডটকমকে জানান, ‘পরিবহনের চাপায় ট্রলিচালক নিহত হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

নোয়াখালী: নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী পৌরসভায় যাত্রীবাহী বাসচাপায় সাহাব উদ্দিন (৫৬) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। ঘটনার পরপরই বাসটি দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করায় আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রোববার ভোর ৬টার দিকে রামগঞ্জ-সোনাইমুড়ী সড়কের সোনাইমুড়ী বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সাহাব উদ্দিন সোনাইমুড়ী পূর্ব পাড়া এলাকার চাঁন মিয়া ব্যাপারী বাড়ির আবদুল মোতালেবের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত সাহাব উদ্দিন পেশায় একজন দিনমজুর ছিলেন। তিনি সোনাইমুড়ী বাজারে বিভিন্ন গাড়ি থেকে মালামাল লোড-আনলোড (ওঠা-নামা) কাজ করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় কাজ করার জন্য রোববার ভোরে সোনাইমুড়ী বাজারে আসছিলেন সাহাব উদ্দিন। পথে বাইপাস এলাকায় আসা মাত্র লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা আল বারাকা সার্ভিসের একটি দ্রুতগতির বাস সাহাব উদ্দিনকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

সোনাইমুড়ী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রহিমা খাতুন পরিবর্তন ডটকমকে জানান, স্থানীয়দের দেয়ায় তথ্যের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার পর আল বারাকা সার্ভিসের বাসটি দ্রুত  ঘটনাস্থল ত্যাগ করায় আটক করা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নাটোর: নাটোরের সিংড়ায় ট্রাক ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক মিনহাজুর রহমান (৩৫) নামে এক শিক্ষক নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছে আরো একজন।

আহতকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের শেরকোলে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মিনহাজুর রহমান সিংড়া উপজেলার নিংগন গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে ও সিংড়া ১৬৪নং শিশু কল্যাণ বিদ্যালয়ের শিক্ষক।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) সেলিম রেজা ও নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানান, রোববার সকালে মিনহাজুর রহমান ও তার এক সহকর্মী মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি থেকে নাটোর শহরের পিটিআই প্রশিক্ষণে যাচ্ছিলেন। পথে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সিংড়ার শেরকোল এলাকার পৌঁছলে নাটোর থেকে বগুড়াগামী একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেলে থাকা দুজনই ছিটকে পড়ে সড়কে। পরে ট্রাকের চাকা মিনহাজের ওপর দিয়ে চালিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা ঘটনাটি দেখতে পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিনহাজুর রহমান মারা যান। অপর আহত ব্যক্তিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এইচআর

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও