নাটোরে ঘর থেকে মা ও পুকুর থেকে সন্তানের মরদেহ উদ্ধার
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৩১ মে ২০২০ | ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

নাটোরে ঘর থেকে মা ও পুকুর থেকে সন্তানের মরদেহ উদ্ধার

নাটোর প্রতিনিধি ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ, মে ১৫, ২০১৯

নাটোরে ঘর থেকে মা ও পুকুর থেকে সন্তানের মরদেহ উদ্ধার

নাটোরের নলডাঙ্গা থেকে মা শারমিন বেগম ও দুই বছরের শিশু সন্তান আব্দুল্লাহর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার সকালে উপজেলার বাশিলা উত্তরপাড়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় শারমিনের মৃতদেহ এবং শিশু আব্দুল্লাহর মৃতদেহটি বাড়ির পাশের পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়।

নিহত শারমিন বেগম ও আব্দুল্লাহ ওই এলাকার মাহামুদুল হাসান মুন্নার স্ত্রী ও সন্তান।

নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুর রহমান ও এলাকাবাসী জানান, উপজেলার বাশিলা উত্তরপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে মাহামুদুল হাসানের সাথে একই উপজেলার হরিদাখলসি গ্রামের শারমিন বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই মাহামুদুল ঢাকার একটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন এবং সেখানেই বসবাস করেন। মাঝে মাঝে ছুটিতে বাড়িতে আসেন। এ সময় তার স্ত্রী-সন্তান এবং বাবা ও মা-সহ পরিবারের সাথেই থাকতেন তিনি।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে শারমিন বেগম তার শিশু সন্তান আব্দুল্লাহকে নিয়ে তাদের শোবার ঘরে চলে যান। পরে সেহেরি করার সময় পরিবারের লোকজন তাকে ডাকতে গেলে ঘরের ভেতরে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় তার মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে। এ সময় পরিবারের সদস্যদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে এবং শিশু আব্দুল্লাহর খোঁজ করে।

পরে ভোর ৬টার দিকে বাড়ির পাশের একটি পুকুর থেকে শিশু আব্দুল্লাহর মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, চুরি বা ডাকাতির উদ্দেশ্যে কেউ ঘরে ঢোকে। এ সময় শারমিন বেগম তা দেখতে পেলে তাকে গলায় ওড়া পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবং পালিয়ে যাওয়ার সময় শিশু আব্দুল্লাহকে পুকুরে ফেলে হত্যা করে।

তবে ঘর থেকে কোনো কিছু খোয়া গেছে কি না তা এখনও জানা যায়নি। ঘটনাটি তদন্ত করছে পুলিশ।

বিএল/আরপি

 

: আরও পড়ুন

আরও