বগুড়ায় পৌর কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি, আটক ১

ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

বগুড়ায় পৌর কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি, আটক ১

বগুড়া প্রতিনিধি ২:২২ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

print
বগুড়ায় পৌর কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি, আটক ১

বগুড়া পৌরসভার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাস্তা ও প্রতিবেশীদের বাড়ির মূল গেট বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণে বাঁধা দেয়ায় ১৩ নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর খোরশেদ আলমকে লক্ষ্য করে ৪ রাউন্ড গুলি চালিয়েছে সাবেক যুবলীগ নেতা নামধারী বগুড়া আলতাব আলী সুপার মার্কেটের সাবেক সাধারন সম্পাদক মাসুম কামাল মাসুম (৫০)।

সোমবার বেলা পৌনে ১১ টার দিকে বগুড়া শাজাহানপুর থানার অন্তর্গত ফুলদিঘী মধ্যপাড়ায় এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) সনাতন চক্রবর্তির নেতৃত্বে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছিলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়ে যায় মাসুম কামাল। পরে মাসুম কামালের বাড়ি তল্লাশী করে তার স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে এবং তার ব্যবহৃত একটি মটরসাইকেল জব্দ করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, যাতায়াতের রাস্তার জন্য প্রয়োজনীয় জমি রেখে বাড়ি-ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। ওই রাস্তা দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত চলাফেরা করা হয়। কিন্তু মাসুম কামাল জোরপূর্বক ওই রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে এমনকি প্রতিবেশীদের বাড়িতে প্রবেশের মূল গেট বন্ধ করে দিয়ে ইটের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের চেষ্টা করে। কিছু বললেই অস্ত্রের ভয় দেয়ায়। ফলে কেউ বাঁধা দেয়ার সাহস পায় না। এমতাবস্থায় সোমবার সকালে ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোরশেদ আলম স্থানীয় লোকজন সহ এসে বাঁধা দিলে প্রকাশ্য দিবালোকে পিস্তুল বের করে কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এসময় ভয়ে স্থানীয়রা ভয়ে আত্মগোপন করেন। মাসুম কামালের নিকট একাধিক অবৈধ অস্ত্র রয়েছে বলেও জানান স্থানীয়রা।

প্রতিবেশী নুর মোহাম্মাদ ও ছখিনা বেওয়া জানান, বাড়ির মূল গেট ঘেষে ইটের প্রাচীর নির্মাণের চেষ্টা করলে তারা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। এঘটনায় ১১ জানুয়ারী শাজাহানপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ছখিনা বেওয়া। বগুড়া পৌরসভার মেয়র বরাবরও অভিযোগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু তাতেও কোন কাজ হয়নি।

১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোরশেদ আলম জানান, ফুলদিঘী মধ্যপাড়ার মৃত মোশাররফ হোসেন পুত্র মাসুম কামাল মাসুম একজন ভূমিদস্যু। প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে জোর-জুলুম করে অন্যের জমি জবর-দখল করায় তার কাজ। প্রতিবেশীদের পৌরসভার মেয়রের নিকট অভিযোগ দেয়ার পর পৌর মেয়র মাসুম কামালকে কাজ বন্ধ রেখে স্থাপনা নির্মাণের প্লানের কাগজপত্র দেখাতে বলেন। কিন্তু তিনি তা না করে পৌর মেয়রের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোর-জুলুম করে সন্ত্রাসী স্টাইলে সোমবার সকাল থেকে রাস্তা ও প্রতিবেশীদের বাড়ির মূল গেট বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করে। স্থানীয় প্রতিবেশীদের দেয়া খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে নিষেধ করলে মাসুম কামাল অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বলে, তুই কে, তুই কি মেয়র। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মাসুম কামাল তার বাড়ির ভেতরে যায়। এর কিছু সময় পর বাড়ি থেকে বের হয়েই কোমর থেকে রিভলবার বের করে কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকলে মাটিতে শুয়ে পড়ে হামাগুড়ি দিয়ে নিরাপদ স্থানে গিয়ে আত্মরক্ষা করেন কাউন্সিলর খোরশেদ আলম। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান কাউন্সিলর খোরশেদ আলম।

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, মাসুম কামাল পালিয়ে যাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তার বাড়ি তল্লাশী করেও কোন অস্ত্র পাওয়া যায়নি। তবে তার স্ত্রীকে আটক রাখা হয়েছে এবং একটি মটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। যে রিভলবার থেকে গুলি ছোড়া হয়েছে সেটা লাইসেন্সকৃত বলে জানিয়েছে তার স্ত্রী।

 এএইচ/আরজি

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad