রান্না ঘরের কাজ চটপট সেরে ফেলার কিছু টিপস

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭ | ৯ কার্তিক ১৪২৪

রান্না ঘরের কাজ চটপট সেরে ফেলার কিছু টিপস

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭

print
রান্না ঘরের কাজ চটপট সেরে ফেলার কিছু টিপস

শুধু রান্না খাওয়ার জন্যই যদি দিনের বেশির ভাগ সময় নষ্ট করে ফেলেন, তাহলে বাকি কাজ কখন করবেন? আর রান্না ঘর নিয়ে বেশি কাজ করার কারণে আপনার শারীরিক মানসিক দুই দিকই খুব খারাপ যেতে থাকে। তাই রান্না-খাওয়ার ঝামেলা নিয়ে বন্দি থাকার বদলে শিখে নিন চটপট করে রান্না ঘরের কাজ সেরে ফেলার কিছু ম্যাজিক টিপস।

আপনার পরিবারে সারা সপ্তাহে যে ধরনের খাওয়া দাওয়া হয়, সেই অনুযায়ী দিন পনেরোর মতো প্ল্যানিং আগে থেকেই করে রাখুন। সেই প্ল্যান মতো সপ্তাহে দুই বার বাজার করে স্টক করে নিন।

বাড়িতে আচার, চাটনি, সস, মেয়নিজ বা কাসুন্দির মতো জিনিস স্টকে রাখুন। চটজলদি পরিবেশন করে খাবারের স্বাদ বাড়িয়ে দিতে পারেন।

ফ্রোজেন ফুড অথবা সেমিকুকড ফুড স্টক করে রাখুল হঠাৎ প্রয়োজনে চটজলদি রান্না করতে সুবিধা হবে।

বিভিন্ন কাজের একটা কম্বিনেশন করে নিন। দেখবেন, অনেকটা সময় বাঁচবে আপনার। যেমন ধরুন, ভাত বা ডাল এক দিকে সেদ্ধ হতে দিয়ে অন্য দিকে আপনি সিঙ্কে জমে থাকা বাসন ধুয়ে ফেলুন অথবা সবজি কেটে রাখতে পারেন।

আগের দিন কিছু কাজ পরিমাণে একটু বেশি করে রাখুন, তাহলে পরের দিন কিছু রান্নার জোগাড় হয়ে থাকবে।

ডাল, চিনি, চা-পাতা বা নানা রকমের মসলাপাতি ট্রান্সপারেন্ট জারে অথবা লেবেল লাগানো জারে রাখুন। একেকটা তাকও আলাদা করে বরাদ্দ করে দিতে পারেন। তা হলে খুঁজতে গিয়ে সময় নষ্ট হবে না।

চায়ের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম একটি ট্রেতে সাজিয়ে রাখুন। যেমন—চায়ের পট, ছাঁকনি, চিনি কিংবা গুঁড়া দুধের পট, চামচ ইত্যাদি সাজিয়ে রাখুন। তা হলে প্রত্যেকবার চা বানানোর জন্য একেকটা জিনিস খুঁজতে গিয়ে সময় চলে যাবে না।

যেখানে তেল, ঘি কিংবা আচার, কাসুন্দি রাখবেন, সেখানে প্লাস্টিক বা গ্রিজগ্রুফ পেপারের শিট তাকের উপর পেতে রাখবেন। তাতে প্রত্যেকবার তাক থেকে তেল-ঘিয়ের দাগ মুছতে হবে না।

কিচেনের একটি নির্দিষ্ট জায়গায় একটা কাঁচি রেখে দেবেন। এতে করে প্যাকেট খোলার দরকার ছাড়াও ধনেপাতা, কারিপাতা, পার্সেল অথবা কাঁচা মরিচের মতো টুকটাক কিছু কুঁচিয়ে নেওয়ার দরকারে কাজে লাগবে।

ডিম সেদ্ধ করছেন, তখনই তার সঙ্গে বেশকিছু আলু সেদ্ধ করে রাখুন। কোনো না কোনো রান্নায় লেগে যাবে। আবার ওই গরম পানিটাই বাসন ধোওয়ার জন্য অথবা কিচেন ন্যাপকিন সাফ করার কাজে লাগিয়ে নিন। এভাবে রান্নাঘরের বেশ খানিকটা সময় বাঁচে।

তথ্য ও ছবি : এভি

ইসি/

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad