পূজায় গৃহসজ্জায় নজর দিন মেঝের টাইলসে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ | ৫ মাঘ ১৪২৪

পূজায় গৃহসজ্জায় নজর দিন মেঝের টাইলসে

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:০১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭

print
পূজায় গৃহসজ্জায় নজর দিন মেঝের টাইলসে

পূজা উপলক্ষ্যে সারা বাড়ির সাজ-সজ্জাতো পরিবর্তন হবেই। এর সাথে নজর দিতে হবে মেঝের টাইলসে। কারণ দৃষ্টিনন্দন টাইলস ব্যবহারের ফলে ঘরের সৌন্দর্য বাড়লেও ঠিকমতো যত্ন না নিলে সেই টাইলসই একসময় তার ঔজ্জ্বল্য হারিয়ে অসুন্দরের কারণে পরিণত হতে পারে। তাই নিয়মিত টাইলস পরিষ্কারের পাশাপাশি তার যত্নও করতে হবে। তবে আসুন জেনে নেই কীভাবে টাইলসের যত্ন নিবেন।

টাইলসের যত্ন-আত্তি :

১. প্রতিদিন কমপক্ষে একবার হলেও টাইলস পরিষ্কার করতে হবে।

২. টাইলসের ওপর কোনোমতেই যেনো পানি জমে না থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৩. রান্নাঘরের টাইলসে ময়লা পড়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি থাকে। তাই পরিষ্কারক তরল ডিটারজেন্ট দিয়ে সব সময় কিংবা রান্নার পরপরই তেল-চর্বি পরিষ্কার করে রাখতে হবে।

৪. প্রতিদিন ঘর মোছার মতো শুকনো পরিষ্কার কাপড় পানিতে ভিজিয়ে ঘরের প্রতিটি কক্ষ পরিষ্কার করে রাখতে হবে। তবে লক্ষ্য রাখতে হবে, পানি দিয়ে পরিষ্কার করার সময় মেঝে পিচ্ছিল হয়ে না যায়।

৫. তেল-চর্বিজাতীয় দাগ পড়ে টাইলস যেন নষ্ট না হয়, সে জন্য যেসব স্থানে দাগ পড়বে। সঙ্গে সঙ্গে তা সাবানের পানি দিয়ে ভালো করে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে।

৬. সাধারণত টাইলসের জোড়া লাগানো স্থানের কোনায় কোনায় ময়লা জমে কালচে দাগ পড়ে, তাই সপ্তাহে অন্তত এক দিন ডিটারজেন্ট পাউডার গোলা পানি কিংবা ফোমে সাবান বা লিকুইড ক্লিনার দিয়ে সেগুলো পরিষ্কার করতে হবে।

৭. ঘরের মেঝে রোগজীবাণুমুক্ত রাখতে সপ্তাহে অন্তত একবার স্যাভলন পানির সঙ্গে মিশিয়ে ঘরের মেঝে পরিষ্কার করতে হবে।

৮. দেয়ালের সিরামিক-টাইলস পরিষ্কার করার জন্য শুকনো সুতির কাপড় ব্যবহার করতে পারো। এতে করে টাইলসে দাগ পড়ার আশঙ্কা থাকে না।

৯. সপ্তাহে একদিন খাটের নিচে, সোফার নিচে, ফার্নিচারের পেছনে ও আশপাশে ভালো করে পরিষ্কার করে নিন, যেনো সেই জায়গার টাইলসগুলোও পরিচ্ছন্ন থাকে।

১০. বাথরুমের টাইলস খুব দ্রুত নোংরা হয়ে যায়। তা ছাড়া বাথরুমে জীবাণুর আক্রমণও থাকে অনেক বেশি। তাই অন্তত সপ্তাহে দুবার বাথরুমের কমোড, বেসিনসহ টাইলস পরিষ্কার করতে হবে।

সবসময় যদি অল্প অল্প করে টাইলস পরিষ্কার করে রাখেন তাহলে সপ্তাহে বা মাসে একদিন অনেক পরিশ্রমের হাত থেকে বেঁচে যেতে পারবেন। আর আপনি ও আপনার পরিবার থাকবে সুস্থ মানসিক প্রশান্তি নিয়ে। 

তথ্য ও ছবি : এবিপি

ইসি/

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad