টুপি, আতর ও তসবি কেনাকাটা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

টুপি, আতর ও তসবি কেনাকাটা

বগুড়া প্রতিনিধি ১:১৪ অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০১৭

print
টুপি, আতর ও তসবি কেনাকাটা

এখন পবিত্র শবে বরাতের নামাজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন সকল মুসলমানরা। আজ রাত সকল মুসলমানরা আল্লাহ্‌র ইবাদতে পার করার জন্য তৈরি হচ্ছেন। আর এই নামাজ, দোয়া-কালামের জন্য কিছু প্রস্ততির প্রয়োজন পরে। আর এজন্য চলছে টুপি, আতর, সুরমা ও তসবি কেনার ধুম।

.

রাজধানীর বায়তুল মোকাররম, কাকরাইল মসজিদ ও তার আশপাশ এলাকা, নিউ মার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, গুলিস্তান, পল্টন, ফার্মগেটসহ বিভিন্ন এলাকায় আতর, টুপি, ‍সুরমা কিনতে ভিড় জমেছে দোকানগুলোতে। 

এছাড়া রাজধানীর অন্য দোকানগুলোতে  একশ মিলিলিটারের সুলতান ১৮শ' থেকে ২ হাজার টাকা, আলফারেজ ২ হাজার, লর্ড ১২শ', সিলভার ১৮শ', ওপেন ১৫শ', আলফে জহুর ২ হাজার, বস্ন্যাক অ্যাকসেস ১৫শ', রোজ ১৭শ', ডাহনাল উদ ৫ হাজার, ইস্কাদা কালেকশন ১৫শ', ইগুবস ১৬শ', বস ১৫শ' এবং ম্যাডার রোজ ব্র্যান্ডের আতর ১৬শ' টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি বোতল সৌদির রয়্যাল ম্যারেজ ৫০ টাকা, ওয়ান ম্যান শো ১২০, শপিজ ৬শ', সাফসাফা ২শ', দুবাইয়ের সুলতান ২২০, ভারতের কোবরা আড়াইশ, বোম্বে দরবার ৩শ', নূর ৩শ' এবং ইরানি গাউজ আতর ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 

তবে মন মাতানো সৌরভের বিদেশি আতরের পাশাপাশি দেশিয় আতরও পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ৩শ' টাকার মধ্যে। এর মধ্যে দরবার-কাঁচাবেলী ২০ টাকা, মদিনা ৪০ এবং জান্নাতুল ফেরদাউস ২০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। দাম কম হওয়ায় অনেক ক্রেতাই দেশি আতর 'শাহি দরবার' কিনছেন। দেশি শাহি দরবার আতর ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, রজনীগন্ধা ৪০ থেকে ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।   

টুপি বাহারি পসরা : দেশি টুপির পাশাপাশি বাহারি নকশা আর আকৃতির বিদেশি টুপিও পাওয়া যাচ্ছে দোকানে। নকশার সঙ্গে মিল রেখে এসব টুপির চমকপ্রদ সব নাম দিয়েছেন বিক্রেতারা। এসব দোকান ঘুরে দেখা গেল চীনা টুপি দেড়শ থেকে ২শ' টাকা, পাকিস্তানি টুপি দেড়শ থেকে ৬শ', ভারতীয় টুপি ২০ থেকে ৬শ' এবং দেশে তৈরি টুপি ১ থেকে দেড়শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 

পাকিস্তানি টুপির মধ্যে 'আসিফ জারদারি' বিক্রি হচ্ছে ৮শ' টাকায়। চীনের ওয়ানি সাড়ে ৫শ' টাকা, ভারতের গুজরাটি আড়াইশ থেকে ৩শ', সিডনি ৪শ', পাঠান সাড়ে চারশ এবং ছোট পুঁতির সঙ্গে সোনালি সুতোর কাজ করা প্রতিটি টুপি বিক্রি হচ্ছে ৪শ' থেকে ৮শ' টাকায়। 

এছাড়া নেটের তৈরি চীনা টুপি দেড়শ টাকা এবং তুর্কি টুপি ৫০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি করছেন দোকানিরা।

 

জায়নামাজের দরদাম : এবার পাকিস্তানে তৈরি কোকার জায়নামায সাড়ে ৪শ' থেকে ৫শ' টাকা, শাহীন ৫শ' থেকে সাড়ে ৬শ', ন্যাশনাল সাড়ে ৪শ' থেকে ৬শ', তুরস্কের আইরিন ৫শ' থেকে ৬শ', কাটারে নেওয়াজ সাড়ে ৪শ' টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশে তৈরি গ্যাভার্ডিন কাপড়ের জায়নামাযগুলো বিক্রি হচ্ছে দেড়শ থেকে ২শ' টাকায়। 

জরির কাজ করা তুরস্কের আইরিন জায়নামায ৭শ' থেকে ৯শ' টাকা এবং সিরিয়ার জায়নামাযের দাম ৩ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়া একসঙ্গে তিনজন নামাজ পড়া যায়- তুরস্কের তৈরি এমন আকৃতির জায়নামাযের দাম চাওয়া হচ্ছে ৫ হাজার টাকা। কুষ্টিয়ার তৈরি জায়নামাযগুলো দুইশ থেকে ৩শ' টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। 

প্লাস্টিকের পাশাপাশি কাঠ ও পাথরের তৈরি বিভিন্ন ধরনের তসবি পাওয়া যাচ্ছে দোকানগুলোতে। আকার ও উপাদানভেদে দামেও পার্থক্য রয়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেটে আকিক পাথরের তৈরি তসবি ৪শ' থেকে ১২শ' টাকা, জমরুদ ৩শ' থেকে ৬শ', সোলেমানি পাথরের তসবি ৩০ থেকে দেড়শ, ক্রিস্টালের তসবি ৫০ থেকে ৩শ' টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। এছাড়া কাঠের তৈরি তসবি ৫০ থেকে ১শ' টাকায় বিক্রি হচ্ছে বলে জানালেন দোকানিরা। ঈদের আরেক অনুষঙ্গ সৌদি আরবের সুরমা প্রতি তোলা বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা দামে। 

ইসি/

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad