অবকাশে বদলে গেছে আদালতের দৃশ্যপট

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ২ পৌষ ১৪২৪

অবকাশে বদলে গেছে আদালতের দৃশ্যপট

শুভ্র সিনহা রায় ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬

print
অবকাশে বদলে গেছে আদালতের দৃশ্যপট

প্রত্যেক বছরের ডিসেম্বর মাসে ঢাকার নিম্ন আদালতসহ দেশের সব নিম্ন আদালতে অবকাশকালীন ছুটি দেওয়া হয়। এ সময় আদালতে বদলে যায় চিরচেনা দৃশ্য। আদালত পাড়ায় আইনজীবী, বিচারপ্রার্থী, গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্য ও স্বল্প আয়ের মানুষদের আনা-গোনা অনেক কমে যায়। বেশির ভাগ আইনজীবী অলস সময় কাটান। তবে ঢাকার সিএমএম আদালত ও সিজেএমএম আদালতসহ কিছু আদালতে বিচার কাজ চলে।

.

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত প্রাঙ্গণে রোববার গিয়ে দেখা যায়, আদালতে নেই সেই ব্যস্ততা। শুধু দু’একটি আদালত খোলা রয়েছে। আদালতের দায়িত্বরত কর্মচারীরা তাদের কিছু পেন্ডিং কাজ শেষ করছেন।

আদালত ভবনের সামনে মোহাম্মদ রিপন নামের এক হকার বলেন, ‘ডিসেম্বর মাস খুব অর্থনৈতিক মন্দায় থাকতে হয়। আগে দৈনিক দুই হাজার টাকা বেচা-বিক্রি হতো। আর এখন ব্যবসা অর্ধেকে নেমে এসেছে। আদালতে আইনজীবী ও মক্কেল না আসায় এ বেচা-বিক্রি হচ্ছে না। এতে খুব অভাবে সংসার চালাতে হচ্ছে।’

চা দোকানদার ফারুক জানান, আগের থেকে অনেক ব্যবসা কমে গেছে। আদালতে কোনো মানুষ নেই। তাই ব্যবসা খারাপ। ডিসেম্বর মাস আসলেই টেনশন হয়। চালান ঠিক মতো ওঠে না। এক মাস দীর্ঘ সময় ধরে আদালত বন্ধ থাকায় অনেক অভাবে সংসার চালাতে হয়। তবে জানুয়ারি থেকে আবার পুরোদমে আদালত চালু হলে ব্যবসা ভালো হবে বলে আশা করেন তিনি।

সিএমএম আদালতের বিকাশের এজেন্ট মো. কামাল জানান, ডিসেম্বর মাসে বিকাশসহ সব মোবাইল ব্যাংকিং এ মন্দাভাব। এ ছাড়া আদালত বন্ধ থাকায় ফটোকপি, কম্পিউটার টাইপসহ সব ক্ষেত্রে আয় কম হয়।

ঢাকা বারের আইনজীবী মো. মাহফুজ জানান, ডিসেম্বর মাসে আদালত বন্ধ থাকায় বেকার সময় কাটাতে হয়। জজকোর্ট বন্ধ থাকলেও ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, বিশেষ জজ আদালত ও দ্রুত বিচার আদালতের বিচারিক কার্যক্রম চলতে থাকে।

তিনি আরো জানান, ডিসেম্বর মাসে অবকাশকালীন ছুটিতে অনেক আইনজীবী গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে যান। অনেকে সামর্থ্য অনুযায়ী দেশের বাইরেও ঘুরতে যান।

তিনি জানান, জানুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে আবার আগের মতো আদালতের বিচার কাজ শুরু হলে কর্মচাঞ্চল্য শুরু হবে।

ঢাকার শ্রম আদালতের আইনজীবী বেলাল হোসেন জানান, শ্রম আদালত ডিসেম্বর মাসে খোলা থাকলেও নিম্ন আদালত বন্ধ রয়েছে। আদালতে আইনজীবীর সংখ্যা একেবারে স্বল্প। শুধু মামলা থাকলে আইনজীবীরা আসেন। জানুয়ারি থেকে আদালতের ব্যস্ততা বাড়বে বলে জানান তিনি।

সিনহা/জেআই

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad